• ঢাকা
  • বুধবার, ২৭ মে ২০২০ | ১৩ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭
লকডাউনে কিছু পুলিশের রমরমা বাণিজ্য !

মুমূর্ষ রোগীকে রক্ত দিতে যাওয়ায় পুলিশের বাধা : অতঃপর রোগীর মৃত্যু !

মুমূর্ষ রোগীকে রক্ত দিতে যাওয়ায় পুলিশের বাধা : অতঃপর রোগীর মৃত্যু !

চট্টগ্রাম ব্যুরো : ঘড়ির কাটায় সন্ধ্যা ৬ টা বাজতেই শুরু হয় সরকার ঘোষিত লকডাউন। শুরু হয় পুলিশের এ্যাকশন। কিন্তু রোগীর ক্ষেত্রেও কি এই লকডাউন প্রযোজ্য? চট্টগ্রাম মেডিকেলে থাকা এক মুমূর্ষু রোগীকে রক্ত দিতে যাওয়ার পথে পুলিশী বাধায় ফিরে যেতে হয় রোগীর স্বজনকে। আর রক্ত সংগ্রহে বিলম্ব হওয়ায় রাতেই সেই রোগী মারা যান বলে অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। এ নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে নগর জুড়ে। নগরীর সদরঘাট থানাধীন এলাকায় এই ঘটনা ঘটে গত (১৩ এপ্রিল) সোমবার সন্ধ্যায়। ঘটনাস্থলে সদরঘাট থানার ওসি ফজলুল রহমান ফারুকী নিজেই উপস্থিত ছিলেন বলে নিশ্চিত করেছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রোগীর স্বজনরা বারবার অনুরোধ করা স্বত্বেও হাসপাতালে যাওয়ার অনুমতি দেয়নি ওসি। উল্টো নাজেহাল করে ফিরে যেতে বাধ্য করেন। এর কিছুক্ষণ পর আরো এক যাত্রী (অন্য এক রোগীর স্বজন) তারাও হাসপাতালে যাচ্ছিল। ওসি গাড়ির গতিরোধ করলে এসময় ভুক্তভোগী ব্যক্তি ওসিকে বলতে শুনা যায়, ভাইয়া হাসপাতালে যাচ্ছি খুব ইমার্জেন্সি। প্রতি উত্তরে ওসি ফারুকী বলেন, আমাকে ভাইয়া ডাকা যাবেনা। রোগী বাঁচুক আর নাই বাঁচুক আমার কিছু যায় আসেনা। আমি আপনাদের যেতে দিবো না।

অনুসন্ধানে দেখা গিয়েছে আরো ভয়াবহ চিত্র। মাদারবাড়ী এলাকাটি বাণিজ্যিক জোন হওয়াতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করতে সামান্য বিলম্ব বা খোলা মিললেই ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে থানায়। টাকার বিনিময়ে রফাদফাও হচ্ছে দেদারসে। এস আই গৌতম, মোর্শেদসহ ওসির খুব ঘনিষ্ঠ কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা এসব অপরাধে জড়িত বলে সনাক্ত করেছেন নাম প্রকাশ না করার শর্তে উক্ত ভুক্তভোগীরা।

শুধু কি তাই? করোনা সংক্রমণ রোধে সারাদেশের পুলিশ সদস্যরা যেখানে মানবতার শীর্ষে নজির সৃষ্টি করেছেন। সেখানে চট্টগ্রামের কয়েকটি থানা এলাকায় করোনা ইস্যুতে চলছে পুলিশের রমরমা বাণিজ্য। সন্ধ্যা ৬ টা বাজতেই শুরু হয় পুলিশের ধরপাকড় মিশন। পথচারী ও যানবাহন থেকে শুরু করে রোগী বহনের গাড়ি, কেউই বাদ যাচ্ছেনা থানার টহল পুলিশের হাত হতে। জরিমানা, মামলা বা জেলে পাঠানোর ভয় দেখিয়ে ১০০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ হাজার টাকা পর্যন্ত আদায় করা হচ্ছে। প্রায় থানা এলাকার কতিপয় অসাধু কর্মকর্তাগন বিভিন্ন দোকানী ও ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন উসিলায় আটক করে পরে চুপিসারে টাকার বিনিময়ে দফারফা করে তাদের ছেড়ে দেন।

সূত্রে জানা যায়, সদরঘাট থানা এলাকায় সন্ধ্যা ৬ টা বাজতেই শুরু হয় কয়েকজন বিপথগামী পুলিশ সদস্যের অনিয়ম। রাস্তায় হেটে বা গাড়িতে চলাচল করতে দেখলে তাদের আটকিয়ে মামলা বা জরিমানার ভয় দেখানো হয় প্রথমে। এরপর আরেকজন এগিয়ে এসে বলে কিছু খরচাপাতি দিয়ে চলে যান। ঝামেলা এড়াতে ভুক্তভোগীরা টাকা দিয়ে চলে যাচ্ছে। এমনকি রোগী বহন করা গাড়ি ও লোকজন পর্যন্ত বাদ যাচ্ছে না তাদের কবল থেকে।

স্থানীয় ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, আইস ফ্যাক্টরী রোড থেকে মাদারবাড়ী রেল গেইট হয়ে কদমতলী মোড় পর্যন্ত এলাকায় প্রায়দিনই এস আই গৌতম ও মোর্শেদ বিভিন্ন দোকানী ও ব্যবসায়ীকে ধরে থানায় নিয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন উসিলায়। মোটা অংকের টাকা আদায় করে তারপর ছাড়ছে।

ভুক্তভোগীরা বলেন, করোনা ভাইরাসের মহামারী হতে নিজেদের রক্ষার্তে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে পুলিশী এসব ভেজাল হতে মুক্ত হতে টাকা দিয়ে তারা উটকো ঝামেলা এড়ান।

ভুক্তভোগীরা এই প্রতিবেদককে নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানায়, ওসি ফারুকী, এস. আই গৌতম ও মোর্শেদ সহ কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা ও কনস্টেবল এই কাজে লিপ্ত। এ বিষয়ে জানতে সদরঘাট থানার ওসিকে কল দিলে তিনি গৌতম ও মোর্শেদ নামক ২ জন এস আই সদরঘাটে কর্মরত আছেন তা নিশ্চিত করেন। ভুক্তভোগীদের অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ওসি বলেন, আমার জানামতে তারা দু'জন তো খুবই ভালো। আমি তো তাদের বিষয়ে এমন কোন অভিযোগ পাইনি। তারপরও আপনি যেহেতু বলেছেন, আমি বিষয়টি দেখবো।

এছাড়াও, গত (১৩ এপ্রিল) সোমবার মাদারবাড়ী আয়রন মার্ট এলাকা থেকে তাহের নামে এক রড ব্যবসায়ীকে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। পরে স্থানীয় কাউন্সিলর প্রার্থী আতাউল্লাহ চৌধুরীর হস্তেক্ষেপে পুলিশ উক্ত ব্যবসায়ীকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়।

এদিকে,চকবাজার থানা এলাকায় এমনও দেখা যায়, ডিউটিরত কর্মকর্তাগন সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতের বিষয়ে সকল ব্যবসায়ীদের কঠোরভাবে সতর্ক না করে ডিউটিরত কনস্টেবলদের দিয়ে উল্টো ব্যবসায়ীদের থেকে ১০০ হতে ৫০০ টাকা পর্যন্ত আদায় করে উক্ত ব্যবসায়ীদের দোকানে জনসমাগমের সুযোগ করে দেন। এমনকি থানা গেইটের ঠিক বিপরীতে একটি মুদির দোকান খোলা থাকে চব্বিশ ঘণ্টা।

করোনার মারা গেলেন ধানমন্ডী-মো.....

 

লাখোকণ্ঠ প্রতিবেদক : করোনার মারা গেলেন ধানমন্ডী-মোহাম্মপুরের সাবেক এমপি হাজী মকবুল হোসেন। ঢাকার সম্.....

ডিএনসিসির পক্ষ থেকে ৮৬ হাজার দ.....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন : ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) নিজস্ব তহবিল থেকে ডিএনসিসির ৮৬ হাজার দুঃস্থ ও অসহায় .....

ফটোসাংবাদিক মিজানুর রহমান খা.....

স্টাফ রিপোর্টার : নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি বাংলাদেশ ফটো জার্ণালিস্ট এসোসিয়েশনের সিন.....

সিগারেটসহ সব ধরণের তামাক পণ্য.....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন : দেশে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সব তামাক কোম্পানির উৎপাদন, সরবরাহ, বিপণন ও তামাকপাতা ক্রয়-.....

ঘূর্ণিঝড় আমফান : ১১’শ সাইক্লোন.....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন প্রতিবেদক : ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ইতিম.....

'জীবনাচরণে স্থানীয় চিন্তায় বৈ.....

আরিফ হোসেন হারিছ, সিরাজদিখান(মুন্সীগঞ্জ) : কোভিড ১৯ সংক্রমনের কারণে বিশ্বজুড়ে লকডাউন চলাকালীন বৈশ্বিক শিক্ষ.....

শিমুলিয়ায় বিপাকে হাজারো মানু.....

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি : ঈদুল ফিতরকে কেন্দ্র করে করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই রাজধানীতে থাকা দক্ষিণবঙ্গের মানুষগ.....

৩৩৩’ এর প্রচারণায় ব্রাহ্মণবা.....

বাহাদুর আলম,ব্রাহ্মণবাড়িয়া : করোনাভাইরাসের দুর্যোগময় পরিস্থিতিতে মাঠ পর্যায়ে কল সেন্টার ‘৩৩৩’ এর প্রচা.....

ডিজিটাল পদ্ধতিতে ১৮ মে আন্তর্.....

স্টাফ রিপোর্টার : করোনা ভাইরাসজনিত রোগ (কোভিড-১৯) এর বৈশ্বিক মহামারির প্রেক্ষিতে বাংলাদেশে এর বিস্তার রোধে ব.....

১৯ দিনে ২০০ বেডের করোনা হাসপাত.....

লাখোকণ্ঠ প্রতিবেদক  : করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা দেয়ার জন্য মাত্র ১৯ দিনে আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজ ২০.....

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের দ.....

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করলেন ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস.....

৫০ লাখ পরিবারের মধ্যে আড়াই হাজ.....

স্টাফ রিপোর্টার : সারা দেশে করোনাভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ লাখ হতদরিদ্র পরিবারের মধ্যে আড়াই হাজার টাকা করে নগদ.....