• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০ | ১৫ ফাল্গুন, ১৪২৬
খাগড়াছড়ির রামগড়সহ বিভিন্ন স্থানে অবৈধভাবে বাঙ্গালীদের ভূমি দখল করছে ইউপিডিএফ

আসন্ন নির্বাচনকে ঘিরে পাহাড়ে বড় ধরণের সংঘাতের আশঙ্কা

খাগড়াছড়ি: আসছে ডিসেম্বরেই জাতীয় সংসদ নির্বাচন, নির্বাচনকে ঘিরে এরই মধ্য সারাদেশে ব্যাপক প্রস্তুতি নিচ্ছে জাতীয় ও আঞ্চলিক রাজনৈতিক দলগুলো। পার্বত্য চট্টগ্রামেও জাতীয় রাজনৈতিক দলসহ পার্বত্য চুক্তি বিরোধী আঞ্চলিক সশস্ত্র সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ), চুক্তি সইকারী সংগঠন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি জেএসএস) ও জেএসএস সংস্কার এবং সদ্য বিভক্ত ইউপিডিএফ গনতান্ত্রিক ও নির্বাচনে অংশ নিতে পারে। এ নিয়ে পাহাড়ের সর্বমহলে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। তবে সব মিলিয়ে এবারের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়ি ও রাঙ্গামাটি আসনে হবে হাড্ডা-হাড্ডি লড়াই এমনটাই পূর্বাভাস পাওয়া যাচ্ছে। পার্বত্য চট্টগ্রামে ইউপি সদস্য নির্বাচন থেকে শুরু করে জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যন্ত প্রায় সবকটি নির্বাচনের পূর্বেই পাহাড়ী সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোর পাহাড় জুড়ে তান্ডব’র কথা কারোরই অজানা নয়। সেক্ষেত্রে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনও ব্যতিক্রম নয়। যেকোন ধরণের সহিংসতাই ঘটতে পারে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে। তারই লক্ষ্যে পাহাড়ে আবারো হিংসাতœক রাজনীতিতে পা দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। এরই ধারাবাহিকতায় বছরের শুরু থেকেই পাহাড়ে খুন, অপহরণ, ধর্ষণ, নিরাপত্তাবাহিনীকে নিয়ে অপপ্রচারসহ খাগড়াছড়ির রামগড়ে অবৈধভাবে বাঙ্গালী সম্প্রদায়ের লোকজনের ভূমি দখলের প্রতিযোগিতায় নেমেছে তারা।এবছরেই সন্ত্রাসীদের হাতে প্রান হারান রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরের আলোচিত উপজেলা চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমা, এরপর তার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার অংশ নিতে যাওয়ার পথে আবারো তান্ডবে প্রান হারান সদ্য সৃষ্ট ইউপিডিএফ গনতান্তিক’র প্রধান বর্মাসহ আরো ৫ জন। এরপর খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় জেএসএস সংস্কার কর্মীকে গুলি ও জবাই করে হত্যা, খাগড়াছড়িতে সন্ত্রাসী হামলায় ৬ জন নিহত, বান্দরবানের লামায় দিনে দুপুরে একটি বাজারে হামলা চালিয়ে লুট-পাট, লামার বরপুর ফাঁড়ির বিজিবি সদস্যদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মিথ্যা অপপ্রচার, খাগড়াছড়ির জেলার গুইমারায় পরিত্যক্ত সেনা ক্যাম্পের ভূমি দখল করে ধর্মীয় উপাসনালয় নির্মান, সর্বশেষ রামগড়ের তৈছালাপাড়ায় বাঙ্গালী একটি সংগঠনের ২ নেতাকে মারধর ও তাদের ব্যবহৃত গাড়িটি পুড়িয়ে দেয়াসহ বেশকিছু আলোচিত ঘটনা সবারই জানা। এদিকে নির্বাচন মূহূর্তে পাহাড়ের শান্ত পরিবেশকে অশান্ত করতে পূর্বপরিকল্পিত ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে, পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বিরোধী সশস্ত্র সন্ত্রাসী সংগঠন ইউপিডিএফ (প্রসীত গ্রুপ) কতৃক বেশ কিছুদিন যাবৎ খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলার ৪৩ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন, রামগড় জোন অঞ্চলের দ¦ায়িত্বপূর্ন এলাকা পাতাছড়া ও খাগড়াবিলের সোনাইআগা, গরুকাটা, লালছড়ি, সাতক্ষীরা পাড়া, গৈয়াপাড়া, তৈছাগারাসহ বিভিন্ন এলাকায় অবাধে অবৈধভাবে ব্যক্তি মালিকানাধীন ভূমি দখল চলছে। উদাহরণসরূপ কয়েকটি ঘটনার বিবরণ তুলে ধরা হলো: ১। ২৭ জানুয়ারি ২০১৮ তারিখে তৈচাগাড়াস্থ বাটনা শিবির নামক স্থানে মোঃ হানিফ মজুমদার (৬৫), মোঃ আবু সাইদ (৫৫) এবং মোঃ ওবাইদুল হক (৫০) নামক তিনজন বাঙালির মালিকানাধীন জায়গায় ইউপিডিএফ (প্রসীত) গ্রুপের লোকজন জোরপূর্বক বসত-ঘর তৈরী করে। কিন্তু, ইউপিডিএফ কর্তৃক তৈরীকৃত ঘরগুলো উক্ত জমির মালিকরা ভেঙ্গে দেয়।পরবর্তীতে বাঙালি ও নিরাপত্তাবাহিনী তাদের বসত-ঘর ভেঙ্গে দিয়েছে মর্মে অপপ্রচার চালায় ইউপিডিএফ সন্ত্রাসীরা। ২। ১৬ এপ্রিল ২০১৮ তারিখে রামগড়ের দুর্গম পাহাড়ি গ্রাম অন্তুপাড়া এলাকায় ইউপিডিএফ (প্রসীত) গ্রুপের কয়েকজন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী আকস্মিকভাবে এসে চাইন্দে মারমা নামক এক ব্যক্তির বসতঘর ও রান্নাঘর ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়। নিরাপত্তাজনিত কারণে চাইন্দে মারমা ঘটনাটি কাউকে এ পর্যন্ত বলেনি। ৩। গত ২৩ মে ২০১৮ তারিখে রামগড় জোনের অধীনস্থ খাগড়াবিল সিআইও ক্যাম্প হতে আনুমানিক ১১ কিঃ মিঃ দক্ষিণ-পূর্ব দিকে গরুকাটা (দক্ষিণ লালছড়ি, ৬নং ওয়ার্ড, ১নং রামগড় ইউনিয়ন, রামগড়, খাগড়াছড়ি) নামক স্থানে পুরানো রামগড়স্থ (সোনাইপুল) বাঙ্গালী মৃত যোগেন্দ্র নাথের ছেলে শ্রী জগদীশ চন্দ্র নাথ’র জমি দখল করে স্থানীয় উপজাতি জনগণের সহযোগিতায় ইউপিডিএফ এর সদস্যরা একটি টিনসেড স্কুল নির্মাণ করে। বিদ্যালয়টির নাম করণ করে “দক্ষিণ লালছড়ি বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়”। এ ব্যাপারে গত ১৬ আগস্ট ২০১৮ তারিখে ০৪ জন পাহাড়ী এবং ০১ জন বাঙ্গালী মিলে ‘‘দক্ষিণ লালছড়ি বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়’’, সভাপতি, নাইলা পাড়ার বারাইয়া ত্রিপুরার ছেলে বিষু কুমার ত্রিপুরা বিদ্যালয়টির কার্যক্রম চালু করার অনুমতির জন্য রামগড় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট একটি আবেদনপত্র জমা দেয়। পরবর্তীতে জমির মালিক শ্রী জগদীশ চন্দ্র নাথ এর বাড়ীতে গিয়ে উক্ত জমিটি বিদ্যালয়ের নামে লিখে দিতে বলে। জমির মালিক জমিটি বিদ্যালয়ের নামে লিখে দিতে অস্বীকার করে। এ ব্যাপারে স্থানীয় লোকজন কতৃক জমির মালিককে লিখিত অভিযোগ দাখিল করার জন্য বলা হলেও তিনি ভয় পাচ্ছেন বলে জানান এবং কারা এর সাথে জড়িত তাদের নাম ও পরিচয় জানেন না বলে অবহিত করেন। রামগড় জোন স্থানীয় উপজেলা থেকে আবেদন এর কপি সংগ্রহ করে। তাতে আবেদনকারী বিষু কুমার ত্রিপুরার নাম উল্লেখ থাকায় টহল দল তাকে খোজার চেষ্টা করে কিন্তু বিষু তার বর্তমানে পলাতক আছে।আবেদনপত্রটি যুৎসই করতে বাঙ্গালী সদস্যসহ ইউপিডিএফ সদস্যরা উক্ত আবেদন দাখিল করে। জোন সদর হতে উপজেলা প্রশাসনকে বিষয়টি জানানো হলে বাঙ্গালী ব্যক্তির জায়গায় অবৈধভাবে স্কুল ঘরটি স্থাপিত করায় অনুমতি প্রদান করা হবে না বলে জানায়। ভুক্তভোগী নিরাপত্তাহীনতার ভয়ে মামলা পর্যন্ত করতে সাহস করেনি বরং জমির শোকে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। উল্টোদিকে, ঘটনার বিস্তারিত অনুসন্ধানের চেষ্টা করায়, নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে স্কুলটি ভাঙচুরের মিথ্যে অভিযোগ ফলাও করে স্থানীয় ইউপিডিএফ সমর্থিত একটি অনলাইন পত্রিকায় প্রকাশ করা হয়। ৪। গত ০৩ জুন ২০১৮ তারিখে রামগড় জোনের আওতাধীন থানাচন্দ্রপাড়া (ইউনিয়ন- রামগড়, উপজেলা- রামগড়, জেলা- খাগড়াছড়ি) নামক স্থানে ১০ জন বাঙ্গালীর ৫০ একরের বেশী জায়গা ছোট ছোট ঝুপড়ি ঘর তৈরী করে দখল করে। এ ব্যাপারে খোজখবর নিয়ে জানা যায় যে, সন্ত্রাসী উপজাতি তথা ইউপিডিএফ এর ভয়ে বাঙ্গালী ব্যক্তিগণ কারো বিরুদ্ধে অদ্যাবধি কোন প্রকার মামলা করেনি। এছাড়াও রামগড় থানায় যোগাযোগ করা হলে বাঙ্গালীদের কর্তৃক কোন মামলা হয়নি বলে জানা যায়। ৫। ৪ঠা জুন ১ নং রামগড় ইউনিয়নের ২২৯ নম্বর রামগড় মৌজার তৈচাগাড়া ও থানা চন্দ্র পাড়া এলাকায় সরকারিভাবে বন্দোবস্তী দেয়া ১৩টি বাঙালি পরিবারের প্রায় ৬০ একর টিলা ভূমি দখল করে বসতি স্থাপন করছে কতিপয় উপজাতিরা। ইউপিডিএফ প্রসীত গ্রুপের সদস্যরা পরিকল্পিতভাবে বাঙালিদেরকে উচ্ছেদ করার লক্ষ্যে অন্যত্র থেকে পাহাড়ি পরিবারগুলোকে এনে বাঙালিদের ওইসব জায়গায় বসতি তৈরী করে দিচ্ছে। ৬। গত ১৮ জুলাই ২০১৮ তারিখে রামগড় জোনের আওতাধীন গৈয়াপাড়া (ইউনিয়ন- রামগড়, উপজেলা- রামগড়, জেলা- খাগড়াছড়ি) এলাকায় জনৈক বাঙ্গালী মোঃ সুলতান আহমেদ (৫৮) এর মালিকানাধীন ০৮ একর জায়গায় গৈয়াপাড়ার শ্যামা চরণ চাকমার ছেলে চিকন চান চাকমা গং (কারবারী), ০৩টি ঝুপড়ি ঘর নির্মাণ করে। উক্ত জমিটির ক্রয়সুত্রে মালিক সুলতান আহমেদ পাহাড়ী সন্ত্রাসীদের ভয়ে উক্ত জমিতে বসবাস না করে চট্টগ্রামজেলার হাটহাজারীতে বসবাস করছে। সুলতান আহমেদ অদ্যাবধি কারো বিরুদ্ধে ভয়ে মামলা দায়ের করেননি। বর্তমানে জোরপূর্বক দখল করে ঐ উপজাতি পরিবারগুলোই সেখানে বহাল তবিয়তে বসবাস করছে। ৭। গত ২০ আগস্ট ২০১৮ তারিখে অত্র জোনের আওতাধীন সোনাইআগা (ইউনিয়ন- রামগড়, উপজেলা- রামগড়, জেলা- খাগড়াছড়ি) নোয়াপাড়া নামক স্থানে বসবাসকারী মোঃ আব্দুল মান্নান (৪২)’কে ইউপিডিএফ এর ১০/১২ জন সন্ত্রাসী মারধর করে আহত করে। পরবর্তীতে স্থানীয়রা আহত ব্যক্তিকে চিকিৎসার জন্য রামগড় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। জানা যায় যে, ইউপিডিএফ (মূলদল) এর সন্ত্রাসীরা সোনাইআগা নোয়াপাড়া হতে বাঙ্গালীদেরকে বাড়ি ঘর ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য হুমকি দিয়ে উক্ত এলাকা পাহাড়ীদের বলে দাবী করে। ৮। গত ২৮ আগস্ট ২০১৮ তারিখে জোন আওতাধীন ফেনীরকূল (ইউনিয়ন- রামগড়, উপজেলা- রামগড়, জেলা- খাগড়াছড়ি) নামক স্থানে জমি সংক্রান্ত বিরোধে ক্যাজাইলা মারমা (২৭)’কে একই এলাকায় বসবাসকারী মোঃ জয়নাল আবেদীন (৫০) ধারালো দা দিয়ে আঘাত করলে ক্যাজাইলা মারমার মাথা ফেটে যায়। উক্ত ঘটনার পর স্থানীয়রা তাকে চিকিৎসার জন্য রামগড় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে উন্নত চিকিৎসার্থে ফেনী সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। চিকিৎসা শেষে এখন সে নিজ বাড়ীতে অবস্থান করছে। উক্ত ঘটনার প্রেক্ষিতে ক্যাজাইলা মারমা বাদী হয়ে রামগড় থানায় একটি মামলা করে যার মামলা নম্বর-০৯ তারিখ ২৮ আগস্ট ২০১৮। এ ব্যাপারে রামগড় থানায় যোগাযোগ করে জানা যায় উক্ত মামলাটি কার্যক্রম চালু আছে। তার রক্তাক্ত ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করে বাঙালী বিদ্বেষী প্রচারণা চালালেও ভুমি বিরোধের প্রকৃত কারণ কোথাও উল্লেখ করা হয়নি। এই ঘটনা প্রচার করলেও ইতিপূর্বে বাঙালীদের জমি দখল বা বাঙ্গালীকে আহত করার ঘটনা স্থানীয় কয়েকটি পত্রিকা প্রকাশ করেনি। ৯। সর্বশেষ ঘটনাটিও সোশ্যাল মিডিয়াতে কিছু স্বার্থান্বেষী ব্যক্তি প্রকৃত সত্য গোপন করেই প্রকাশ্যে সচেষ্ট ছিল। গত ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮তারিখে অত্র জোনের অধিনস্থ খাগড়াবিল সিআইও ক্যাম্পের আওতাধীন দক্ষিণ-পূর্ব কোণে আনুমানিক ৮-৯ কিঃ মিঃ দুরে সাতক্ষীরা পাড়া (ইউনিয়ন- রামগড়, উপজেলা- রামগড়, জেলা- খাগড়াছড়ি) এলাকায় বিজিবির একটি টহল দল গমন করে। উক্ত টহল দল দেখতে পারে, কিছু অপরিচিত পাহাড়ী স্থানীয় পাহাড়ীদের সহায়তায় সাতক্ষীরা পাড়া এলাকায় বসত-ঘর তৈরীর জন্য সরঞ্জামাদি জমা করছে। টহল দলকে তারা উক্ত এলাকার বাসিন্দা নয় বলে জানায়। এহেন পরিস্থিতিতে টহল দল তাদের ঘর তৈরীর মালামাল নিয়ে উক্ত এলাকা ছেড়ে অন্যত্র চলে যেতে বলেন। পরবর্তীতে ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে উক্ত এলাকায় আরেকটি টহল দল গমণ করলে দেখতে পায় অপরিচিত পাহাড়ীরা তাদের বসত-ঘর তৈরীর সরঞ্জামাদি নিয়ে অন্যত্র চলে গেছে। সেখানে তথাকথিত একটি স্কুল ঘর তৈরী করা হয় তবে স্কুল কার্যক্রম চালু নেই। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে কিছু ব্যক্তি প্রচার করে যে, নিরাপত্তা বাহিনী এক বিধবাকে তার ঘর নির্মাণে বাঁধা দিচ্ছে। এ ঘটনায় পাহাড়ভিত্তিক অনলাইন লাইভসিএইচটি ডট কম এ বিস্তারিত অনুসন্ধানী রিপোর্ট করেছে স্থানীয় প্রতিনিধি। ১০। গত ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখ আনুমানিক ৯টার সময় রামগড়ের পশ্চিম বলিপাড়ার নুরুল ইসলাম’র ছেলে সিএনজি চালক ফজলুল করিম (২৩), রামগড় থানাধীন খাগড়াবিল বাজার হতে ভাড়ায় যাত্রী নিয়ে গরুকাটা নামক স্থানে যান। গরুকাটায় যাত্রী নামিয়ে খাগড়াবিল ফেরত আসার সময় মোটর সাইকেল যোগে ও জঙ্গল হতে ইউপিডিএফ (প্রসিত গ্রুপ) এর সদস্য গরুকাটা এলাকার রঙ্গিলা চাকমার ছেলে অনীল বাবু চাকমা, বারইয়া ত্রিপুরার ছেলে বিষু কুমার ত্রিপুরা, অঙ্গ জয় মার্মা ওরফে ডিপজল, রাজেন্দ্র ত্রিপুরা সহ অজ্ঞাত আরো ৫/৬ জন সদস্য তার গতিরোধ করে চাঁদা দাবী করে। সিএনজি চালক চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে সন্ত্রাসীগণ সিএনজি’র সামনের গ্লাস এবং গাড়ীর পেছনের বাম্পার ভেঙ্গে ফেলে। পরবর্তীতে গাড়ীর চালককে গাড়ী থেকে নামিয়ে এলোপাতাড়ীভাবে মারধর করে এবং ‘এই রাস্তায় সিএনজি চালাতে হলে তাদেরকে চাঁদা দিতে হইবে, চাঁদা না দিলে এই এলাকায় সিএনজি নিয়া আসলে তার লাশ গুম করিয়াফেলিবে’ বলে হুমকি প্রদান করে। হুমকির এক পর্যায়ে অনীল বাবু চাকমা এর হাতে থাকা দা দিয়ে কোপ মারতে আসলে ফজলুল করিম সিএনজি ফেলে দিকে দৌড়ে পালিয়ে যায়। সিএনজি মালিক সমিতির মাধ্যমে উক্ত ঘটনা জানার সাথে সাথে তাৎক্ষণিকভাবে বিজিবি ও পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ভাংচুর অবস্থায় সিএনজি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। ফজলুল করিম (সিএনজি চালক) রামগড় থানায় বাদী হয়ে ৩৪১/৩৮৫/৩২৩/৩০৭/৪২৭/৫০৬ পেনাল কোড ধারায় একটি অভিযোগ দায়ের করে যার মামলা নং ০৪ । এরপর উল্লেখিত আসামীদের গ্রেফতারে বিজিবি এবং পুলিশের তড়িৎ যৌথ অভিযানে অনীল বাবু চাকমা (১৯) কে আটক করতে সক্ষম হয়। অন্যান্য আসামীদেরকে গ্রেফতারে বিজিবি এবং পুলিশের যৌথ অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানা গেছে। এছাড়াও ভূমি দখলের এই পন্থা অনুসরণ করে, রামগড়সহ পাহাড়ের দূর্গম আনাচে কানাচে বাঙ্গালী কিংবা হিন্দু মালিকানাধীন অনেক জমি হয় পাহাড়ি সন্ত্রাসীরা জোরপূর্বক দখল করছে, আর না হয় মালিকানাকে বিতর্কিত করছে। তাই স্বাভাবিকভাবেই, পাহাড়ে ভূমি সমস্যার সমাধানের পরিবর্তে আরো জটিল হচ্ছে। মুলত, এক শ্রেণীর স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠীর ইন্ধনেই এই বিষয়টি বর্তমানে এতটা জটিল আকার ধারণ করেছে। জানা গেছে, আসন্ন নির্বাচনকে ঘিরে পাহাড়ে যেকোন ধরণের অপপ্রীতিকর ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বন্ধ, অবেধ ভূমি দখল এবং নিরাপত্তাবাহিনীকে নিয়ে অপপ্রচারসহ সহ সকল অপরাধ দমনে কাজ করছে নিরাপত্তাবাহিনী। তবে নিরাপত্তাবাহিনী কতৃক অস্ত্র, গুলি, সরকারবিরোধী প্রচারনা, লিফলেট, বিষ্ফোরক, চাঁদার রশিদসহ নিরাপত্তা শঙ্কাজনিত বিভিন্ন সরঞ্জহামাদি সহ সন্ত্রাসীদের আটকের পর আদালত থেকে দ্রুত সময়ের মধ্য অতি সহজে জামিনে মুক্তি পেয়ে আবারো পূর্বেও ন্যায় অপরাধে জড়িত হওয়ার ঘটনাও বেডেছে উদ্বেগজনক হাওে, জানা গেছে এ কারণে হতাশ পাহাড়বাসী।পাহাড়ের রাজনীতিতে দিন দিন যেমন ঘটছে পরিবর্তন ঠিক তেমনি ঝরছে রক্ত। স্বাধীনতার পর থেকেই পাহাড়ে নিয়মিতভাবে রক্ত ঝরেছে। বর্তমানে অধিকার আদায় কিংবা গেরিলা আক্রমণ নয়; নিজেদের আধিপত্য লড়াইয়ে একে-অন্যকে প্রতিনিয়ত খুন করছে। এতে দিন দিন পাহাড়ের মানুষের মধ্যে বাড়ছে দূরত্ব, সৃষ্টি হচ্ছে অবিশ্বাসের। সর্বশেষ গত সংসদ নির্বাচনে রাঙ্গামাটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী হন জনসংহতি সমিতির নিজস্ব প্রার্থী ঊষাতন তালুকদার। আবার উপজেলা নির্বাচনে রাঙ্গামাটির দশটি উপজেলার মধ্যে ছয়টি এবং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৪৯টি ইউনিয়নের মধ্যে ৩৩ টিতেই বিজয়ী হয় আঞ্চলিক দলগুলো। এ সব বিষয়ে সচেতন নাগরিক কমিটির সভাপতি অমলেন্দু হাওলাদার বলেন, পাহাড়ের মানুষ আগে সকলে মিলে শান্ত পরিবেশে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রেখে বাস করতো। কিন্তু দিন দিন পাহাড়ে আলাদা হওয়ার প্রবণতা ও ভ্রাতৃঘাতী সংঘাত বেড়ে যাচ্ছে। এর কারণ হিসেবে নিজেদের আধিপত্য বিস্তার ও চাঁদাবাজিকেই অন্যতম কারণ হিসেবে দেখছি। তাছাড়া সামনের নির্বাচনকে সামনে রেখেও পাহাড় অশান্ত করছে তারা। বাংলাদেশ মানবাধিকার’র সদস্য বাঞ্ছিতা চাকমা বলেন, পাহাড়ের সুন্দরতম পরিবেশকে দিনে দিনে বিষাক্ত করে দিচ্ছে কিছু মহল। সম্প্রীতির এই পাহাড় এখন শত্রুতায় রূপান্তরিত হয়েছে। নিজেদের মধ্যকার কোন্দল, আধিপত্য বিন্তার ও চাঁদাবাজির কারণে এ দূরত্ব সৃষ্টি হচ্ছে। পাহাড়ে ১০ মাসে ৩৭ খুন পাহাড়ের রাজনৈতিক মেরুকরণের কারণে বছরের পর বছর হাজারো মানুষ মারা গেলেও গত বেশ কয়েক বছর ধরে পাহাড় ছিলো শান্ত। কিন্তু ২০১৭ সালের ডিসেম্বর থেকে আবারো পাহাড়ে শুরু হয় অস্থিরতা। গত ১০ মাসে পাহাড়ে আবারো ভ্রাতৃঘাতী সংঘর্ষে সর্বশেষ গতকাল ২১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রাণ যায় ৩৭ জনের। এর মধ্যে আঞ্চলিক তিন সংগঠনের লোক ৩২ জন।তবে পাহাড়ের সচেতন মহলের দাবি, শক্ত হাতে এখনই যদি সন্ত্রাসীদের লাগাম টেনে ধরা না হয় তবে আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যেকোন ঘটনার স্বাক্ষী হতে পারে পাহাড়।

সাইনবোর্ডে বাংলা ভাষা নিশ্চি.....

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) উদ্যোগে আজ বেলা এগারটা থেকে দুইটা পর্যন্ত রাজধানী.....

শাজাহান খানের মামলা প্রত্যাহ.....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন : বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শাজাহান খানের বিরুদ্ধে অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্.....

মুজিববর্ষ পালনের নামে চাঁদাব.....

ফাইল ছবি

লাখোকণ্ঠ অনলাইন : অল্প কিছুদিন পরেই মুজিববর্ষ পালন করা হবে। এই মুজিববর্ষ পালন করতে গিয়ে কোনো ধরন.....

নেপালের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সা.....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন : বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, এমপি বলেছেন, নেপাল বাংলাদেশের বন্ধু রাষ্ট্র। নেপালের সাথে ফ্রি.....

খালেদার প্যারোল বিষয়ে আইন অনু.....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন : আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানিয়েছেন, সুনির্দিষ্টভাবে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদনের পরই বেগম .....

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ক.....

স্টাফ রিপোর্টার : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘সারাদেশের সব শহীদ মিনার এবং সব গুরুত্বপ.....

মুজিববর্ষের শ্রেষ্ঠ উপহার থা.....

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা : মুজিববর্ষের শ্রেষ্ঠ উপহার থাকবে বিশ্বকাপ জয়ী বাংলাদেশী টাইগারযুবাদের। দেশে ফিরলে ত.....

বিশ্বমানের সশস্ত্র বাহিনী গড়.....

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা : আধুনিক বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশের সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তোলা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্.....

পরীক্ষা নিয়ে গুজব ছড়ালে কাউকে .....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন : সোমবার ( ৩ ফেব্রুয়ারি  ) সকালে রাজধানীর তেজগাঁও সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর.....

ভেজাল দেবো না, ভেজাল খাবো না, কা.....

ওয়াসিম এমদাদ : গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি বলেছেন, "আমি নিজে ভেজ.....

৯৯৯ নম্বরে এক বছরে দুই কোটি কল .....

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট : রোববার দুপুরে সিলেট পুলিশ লাইন্সে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ও অস্ত্রাগারের উদ্ব.....

বিমান ছিনতাই চেষ্টার মামলার চ.....

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা থেকে রওনা হয়ে মাঝ আকাশে বিমান ছিনতাইচেষ্টার মামলাটির চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা দি.....