• ঢাকা
  • শনিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ | ১১ ফাল্গুন, ১৪২৫
হাসপাতালেই ডাক্তার মাসুদ করিমের প্রাইভেট চেম্বার

সংবাদ প্রকাশের জের : ডা: মাসুদ করিমের দৌড়-ঝাপ শুরু

সংবাদ প্রকাশের জের : ডা: মাসুদ করিমের দৌড়-ঝাপ শুরু

নিজস্ব প্রতিনিধি, গোপালগঞ্জ : “হাসপাতালেই ডাক্তার মাসুদ করিমের প্রাইভেট চেম্বার গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক ও জনবল সঙ্কট : ভোগান্তিতে রোগীরা” শিরোনামে দেশের কয়েকটি অনলাইন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর থেকে মুকসুদপুর উপজেলার ৩১ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সর ডা: মাসুদ করিমের দৌড়-ঝাপ শুরু করেছেন। নিজেকে বাচাতে তিনি বর্তমানে ক্ষমতাশীন দলের কয়েকজন নেতার কাছে ধর্না দিচ্ছে বলে জানা গেছে। এ ছাড়াও সাংবাদিককে ম্যানেজ করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছেন।

দীর্ঘ দিন একই হাসপাতালে কর্মরত থাকার কারনে তিনি স্থানীয় ক্ষমতাশীন দলের নেতা, স্থানীয় সংবাদকর্মীসহ সকলকে হাত করে নেওয়ার ব্যার্থ চেষ্টা করে চলছেন। হাসপাতালেই ডাক্তার মাসুদ করিমের প্রাইভেট চেম্বারে রুগি দেখার কারনে বর্তমানে মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য সেবার মান নেই বললেই চলে। ব্যাপক অনুসন্ধানে জানা যায়, সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা: মাসুদ করিমের ডিউটি থাকলেও তিনি ওই সময় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডিউটি না করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের রুমে বসেই প্রাইভেট ভাবে রুগি দেখে থাকেন। তা ছাড়াও তিনি ডিউটি টাইমে সরকারি বাস ভবনে নিজস্ব চেম্বারে এবং কল পেলেই ছুটে যান বিভিন্ন ক্লিনিক গুলিতে।

এছাড়াও তিনি হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা সাধারন মানুষের সাথে দূর্ব্যাবহার করে থাকেন। হাসপাতালে কোন সময় না মানা, নাইট ডিউটি না করা, অফিস টাইমে হাসপাতালে ও বাসায় বসে রুগি দেখা, হাসপাতালে বসে ভিজিট নিয়ে রুগি দেখা, হাসপাতালের স্টাফদের সাথে দূর্ব্যাবহার করাসহ বিস্তর অভিযোগ রয়েছে ডা: মাসুদ করিমের বিরুদ্ধে। ডা: মাসুদ করিম মুকসুদপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের একজন শীর্ষ নেতার আতœীয়ের পরিচয়সহ স্থানীয় লোক হবার সুবাধে কোন সরকারি আইনের তোয়াক্কা না  করে নিজে তার খেয়াল খুশিমত চলাফেরা করে থাকেন। তা ছাড়াও একজন সাংবাদিক ডা: মাসুদ করিমের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ না করার জন্য বার বার অনুরোধ করেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে মুকসুদপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের কয়েকজন নেতা-কর্মী জানান, ডা: মাসুদ করিম স্থানীয় আওয়ামীলীগের এক নেতার আতœীয় হওয়ার কারনে এবং মুকসুদপুরের বাসিন্দা হওয়ার কারনে কেউ তার বিরুদ্ধে কোন প্রতিবাদ করার সাহস পায়না। তা ছাড়া তিনি পর পর ২-৩ বার অন্যত্র বদলী হলেও কোন এক কালো হাতের ইশারায় ও উপর মহলে ঘুষ দেওয়ার মাধ্যমে বার বার এ হাসপাতালেই থেকে যান। নাম প্রকাশ না করার শর্তে মুকসুদপুরের কয়েকজন সংবাদকর্মী জানান, ডা: মাসুদ করিম দীর্ঘ দিন যাবত ধরে এ হাসপাতালে থাকার কারনে তিনি তার নিজস্ব গতিতে চলাফেরা ও কাজকর্ম করে থাকেন। তিনি সরকারি কোন নিয়ম কানুন মানেন না। তিনি সরকারি হাসপাতালের রুমে বসেই ফি নিয়ে রোগি দেখে থাকেন। জরুরী বিভাগে ডিউটি থাকলেও তিনি বাসায় রুগি দেখায় ব্যস্ত থাকেন। তারা আরো বলেন, স্থানীয় এক আওয়ামীলীগ নেতার আতœীয় হওয়ার কারনে তিনি কয়েকজন সংবাদকর্মী, কয়েকজন রাজনৈতিক কর্মী ও সাধারন মানুষের সাথে খারাপ ব্যবহার করেছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন সংবাদকর্মী জানান, মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা: মাসুদ করিমের ডিউটি থাকলেও তিনি ওই সময় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডিউটি না করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের রুমে বসেই প্রাইভেট ভাবে রুগি দেখে থাকেন। তা ছাড়াও তিনি ডিউটি টাইমে সরকারি বাস ভবনে নিজস্ব চেম্বারে এবং কল পেলেই ছুটে যান বিভিন্ন ক্লিনিক গুলিতে। রুগি না থাকলে হাসপাতালের রুমে বসে তিনি বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানির লোকদের সাথে আড্ডায় ব্যস্ত থাকেন। শুধু তাই নয় বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানির লোকদের কাছ থেকে মুল্যেবান উপহার সামগ্রী গ্রহন করে তিনি তাদের কোম্পানীর ওষুধ লিখে থাকেন বলেও জানান তিনি। পরপর কয়েকবার সরেজমিন ওই হাসপাতালে গেলে ডা: মাসুদ করিমকে তার কর্মরত রুমে পাওয়া যায়নি। তা ছাড়াও তার ব্যবহৃত মোবাইলে বার বার ফোন করা শর্তেও তিনি ফোনটি রিসিভ করেননি। তবে ডা: মাসুদ করিম তার ব্যবহৃত মোবাইল না ধরার কারনে তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। ডা: মাসুদ করিমের বদলীসহ মুকসুদপুর হাসপাতালের চিকিৎসা সেবার মান ফিরিয়ে আনতে প্রধানমন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী, স্বাস্থ্য সচিবসহ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে সাধারন মানুষসহ মুকসুদপুরের অভিজ্ঞমহল।

মহান একুশে ফেব্রুয়ারি আজ .....

‘আমার ভায়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি/ আমি কি ভুলিতে পারি’— না, বাঙালি জাতি ভোলেনি পূর্বপুরুষের মহা.....

পিতার লাশের অপেক্ষায় দুই যমজ .....

এইচ এম কাওসার আহমেদ ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএর ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী। কাজ করতেন চুড়িহাট্টায় এক ফা.....

প্রতি বছর বাড়ছে আট লাখ বেকার: স.....

গত ১০ বছরে অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অনেক উন্নয়ন হলেও কর্মসংস্থান প্রবৃদ্ধি মূল চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফলে প্র.....

শুধু খামখেয়ালিতে ভাড়া করা বিম.....

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের কর্মকর্তাদের খামখেয়ালিপনায় ইজিপ্ট এয়ার থেকে লিজ নেয়া নষ্ট দুটি উড়োজাহাজের পে.....

পুলিশের হাতে নিরীহ মানুষ যেন হ.....

পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পুলিশের হাতে যেন কোনো নিরীহ মানুষ হয়রানি শ.....

বাংলাদেশ নিয়ে মিথ্যা সংবাদ, মি.....

সীমান্ত পরিস্থিতি নিয়ে মিয়ানমারের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রকাশ করায় বাংলাদেশে .....

বাংলাদেশ দুর্নীতিতে বিশ্বে ১.....

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল (টিআই)-এর দুর্নীতির ধারণা সূচক অনুযায়ী বাংলাদেশে দুর্নীতি বেড়েছে। শীর্ষ .....

বিশ্বের শীর্ষ ১০০ চিন্তাবিদদ.....

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে বিশ্বের শীর্ষ ১০০ চিন্তাবিদের তালিকায় স্থান পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ‘প.....

টিআইবির বক্তব্য প্রত্যাখ্যান.....

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল (টিআইবি) যে গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ত.....

প্রধানমন্ত্রীর স্বাক্ষর জালে.....

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বাক্ষর হুবহু জাল করে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে চক্রের মূলহোতা হেলাল উদ্দিনস.....

নতুন মন্ত্রি পরিষদে স্থান পেল.....

নতুন মন্ত্রিপরিষদ শপথ গ্রহণ করবে আগামীকাল। তাই এরই মধ্যে যারা মন্ত্রিসভায় স্থান পাচ্ছেন তাদের নাম ঘোষণা কর.....

আবার থ্রি-জি ও ফোর-জি বন্ধের নি.....

আজ থেকে ভোটের দিন পর্যন্ত মোবাইল ইন্টারনেটের থ্রিজি-ফোরজি সেবা বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ.....