• ঢাকা
  • বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ১২ আশ্বিন, ১৪২৯

চট্টগ্রামের অভিজাত আবাসিকে ভয়ংকর গ্যাং!

চট্টগ্রামের অভিজাত আবাসিকে ভয়ংকর গ্যাং!

সাইদুল ইসলাম (মাসুম), চট্টগ্রাম : ঘর থেকে বের হবার পর স্কুল কলেজ পড়ুয়া ছেলেকে নিয়ে দিনভর দুশ্চিন্তায় কাটে চট্টগ্রাম নগরীর চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার বাসিন্দাদের। শতভাগ শিক্ষিত ও বিভিন্ন পেশার প্রায় ত্রিশ হাজার মানুষ বসবাস করেন এখানে। অথচ, এলাকাটি অপরাধের আখড়া হয়ে উঠেছে। বেপরোয়া কিশোর গ্যাং গুলোর সংঘাত-সংঘর্ষ লেগেই থাকে বারো মাস। গ্রুপে গ্রুপে আড্ডা, ইভটিজিং, মাদক ক্রয়-বিক্রয়, নির্মাণাধীন ভবনে চাঁদাবাজিসহ ভয়ংকর অপরাধে জড়িয়ে পড়েছে একদল কিশোর তরুণ। পুলিশ ও আইন প্রয়োগকারী অন্যান্য সংস্থাকে বারবার অবহিত করা হলেও আমলে নিচ্ছে না কেউই।

নগরীতে অপরাধ প্রবণ এলাকার শীর্ষে রয়েছে চান্দগাঁও। কিশোর অপরাধীদের হাতে তিনটি হত্যাকাণ্ডের ঘটনাও ঘটেছে। বহদ্দারহাটে আব্দুর সবুর, দর্জি পাড়ায় জিয়াদ, ফরিদের পাড়ায় নুরুল আলমকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছিল। এছাড়া, শমসের পাড়ায় আমজাদ নামে এক ব্যক্তির দুই পা ড্রিল মেশিনে ছিদ্র করে দেওয়ার ঘটনা দেশজুড়ে আলোচিত হয়৷ এসব ঘটনায় জড়িত আসামীরা ছিল কিশোর অপরাধী।

চান্দগাঁও আবাসিক এলাকায় কিশোর গ্যাং গুলোর দৌরাত্ম্য নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গিয়েছে। তুচ্ছ বিষয়ে ছুরিকাঘাত কিংবা কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করার ঘটনা এখন নিত্যদিনের। যখন তখন সংঘাত সংঘর্ষে লিপ্ত হতে দেখা যায় কিশোরদের। অধিকাংশ ঘটনায় ভিকটিমের পরিবার থানায় গিয়ে আইনি ব্যবস্থা নিতেও চরম ভীতির মধ্যে থাকেন। কারণ হিসেবে এলাকাবাসীর ভাষ্য, প্রত্যেক গ্যাংয়ের পেছনে আশীর্বাদ রয়েছে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক ব্যক্তি কিংবা তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসীর। এসব গডফাদারের কারণে প্রশাসনের দ্বারস্থ হলে উল্টো নেমে আসে নানা হুমকি কিংবা ভয়াবহ হামলা।

"প্রশ্ন জুড়ে দিয়ে স্থানীয় এক অভিভাবক বলেন, যদি কোন মায়ের বুক খালি হয় তারপরও কি ঘুম ভাঙবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর?" অনেকটা অসহায় এখানকার বসবাসকারী দুই হাজার পরিবার। সন্তানদের নিয়ে দুশ্চিন্তার শেষ নেই তাদের। অনেকে ভাড়া বাসা বদলে অন্যত্র চলে যাবার পরিস্থিতিও দেখা গিয়েছে। সম্পূর্ণ এলাকা সিসি টিভি ক্যামেরার আওতায়, তবুও আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ সংশ্লিষ্টরা।

সর্বশেষ গত ১ মার্চ দুপুরে চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা বি-ব্লক ১১ নম্বর সড়কে এক স্কুল ছাত্রকে ছুরিকাঘাত করা হয়। এতে ঐ ছাত্রের স্কুলের জামা রক্তাক্ত হয়ে যায়। এ ঘটনায় নেতৃত্ব দেয় দুর্ধর্ষ কিশোর গ্যাং। ২৭ ফেব্রুয়ারী বি-ব্লক ৫ নম্বর সড়কে আরেক ছাত্রকে ছুরিকাঘাত করে অপর এক কিশোর গ্যাং। ভিকটিমকে শমসের পাড়া মেডিকেলে ভর্তি করানো হয়। ২৬ ফেব্রুয়ারী বি-ব্লক ১ নম্বর সড়কের একটি ভবনে ২০/২৫ জন কিশোর যুবক হামলা চালায়। ভবনের ৫ম তলার একটি ফ্ল্যাটে ডুকে ছেলেকে না পেয়ে মা'কে মারধর করা হয়। ঘরে ব্যাপক ভাংচুর-তাণ্ডব চালায় গ্রুপটি। প্রেম ঘটিত তুচ্ছ বিষয় থেকে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

কিশোরদের ছুরি চাপাতি, অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, সংঘাত সংঘর্ষের ঘটনা এখন নিত্যদিনের। ধারালো দেশীয় অস্ত্রের পাশাপাশি বিভিন্ন সময় অত্যাধুনিক অস্ত্রও দেখা গেছে। আর এখানকার কিশোর তরুণদের হাতে অস্ত্র-মাদক তুলে দিচ্ছে কথিত বড় ভাইয়েরা। আধিপত্য বিস্তার ও চাঁদাবাজির নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখতেই মূলত কিশোরদের ব্যবহার করা হচ্ছে।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, চান্দগাঁও আবাসিক এলাকায় ত্রাস ছড়াচ্ছে অন্তত ১৫টি কিশোর গ্যাং। প্রত্যেক গ্যাংয়ের সদস্য সংখ্যা ২০-৩০ জন। স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী ছাড়াও রয়েছে আশপাশ বস্তি এলাকার ছেলেও। এদের সবাই চান্দগাঁও আবাসিক, চন্দ্রিমা আবাসিক, শমসের পাড়া ও ফরিদের পাড়া এলাকার বাসিন্দা। অধিকাংশ কিশোর মাদকাসক্ত। আবার মাদকের টাকা জোগাড় করতে গিয়ে কেউ কেউ মাদক বিক্রয় থেকে শুরু করে ছিনতাই ও চাঁদাবাজিতে জড়িয়ে গেছে।

যেসব গ্যাং ত্রাস ছড়াচ্ছে তাদের মধ্যে নেওয়াজ গ্রুপ, আকাশ গ্রুপ, আকসার গ্রুপ, আশিক গ্রুপ, রাকিব মুফরাদ গ্রুপ অন্যতম। গ্যাং লিডার হিসেবে প্রত্যেকে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার তালিকাভুক্ত। বিভিন্ন সময় মামলাও হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। তবুও বেপরোয়া এসব গ্যাং লিডারদের লাগাম টেনে ধরা যাচ্ছে না।

অপরাধ বিশ্লেষকরা বলছেন, কথিত বড় ভাই কিংবা গডফাদারদের আইনের আওতায় না এনে গ্যাং কালচার বা কিশোর অপরাধ নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব নয়। এলাকায় শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় প্রশাসনের জিরো টলারেন্স নীতি প্রয়োগ করার দাবি জানান এলাকাবাসী।

সেনাবাহিনীর আর্মি এভিয়েশন গ্রুপের বিমান বহরে যুক্ত হলো নতুন সামরিক বিমান

আইএসপিআর ।। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর আর্মি এভিয়েশন গ্রুপের বিমান বহরে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে আজ রবি.....

আইজিপি বেনজীর আহমেদের অবসরের প্রজ্ঞাপন জারি

লাখোকণ্ঠ অনলাইন ।।  আগামী ৩০শে সেপ্টেম্বর অবসরে যাচ্ছেন পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ। এ বিষয়ে আ.....

মুন্সীগঞ্জে বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষ: পুলিশ ও সাংবাদিকসহ আহত অর্ধশতাধিক

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি : মুন্সীগঞ্জে পুলিশ বিএনপির ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।  ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে মুন্স.....

সকল ক্যাডার কর্মকর্তাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক ।।  জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে সকল ক্যাডার কর্.....

সময় জ্ঞান শুন্য রাজধানী উন্নয়ন কর্পোরেশন (রাজউক)

ইসমাইল হোসেন : সময় স্থীর করে দাঁড়িয়ে আছে রাজধানী উন্নয়ন কর্পোরেশন (রাজউক)-এর ঘড়ি। ঘড়িটা অকেজো হয়ে আছে অনেক দিন .....

আগামী ২২ দিন সারাদেশে ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধ

লাখোকণ্ঠ অনলাইন ।। প্রধান প্রজনন মৌসুমে ইলিশের নিরাপদ প্রজননের লক্ষ্যে ৭ থেকে ২৮ অক্টোবর ২০২২ পর্যন্ত মোট ২.....

লন্ডনের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা ত্যাগ

অনলাইন ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রয়াত রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের শেষকৃত্য ও জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের (ই.....

মৎস্যজীবীদের তালিকা হালনাগাদের নির্দেশ মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক ।।  মৎস্যজীবীদের তালিকা হালনাগাদের নির্দেশ দিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজ.....

ঢাকা-রোম বিমান চালুর বিষয়ে বিমান প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে উপমন্ত্রী শামীমের আলোচনা

নিজস্ব প্রতিবেদক ।।  ইতালি প্রবাসী সমগ্র বাঙালীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে সপ্তাহে অন্তত দুই দিন বাংলাদেশ ব.....

সব উপজেলার খাদ্যনিয়ন্ত্রকরা পাবেন মোটরসাইকেল : খাদ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক ।।  পর্যায়ক্রমে সব উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ে মোটরসাইকেল দেওয়া হবে বলে জানিয়েছ.....

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যে বিব্রত সরকার ও জনগণ !

লাখোকণ্ঠ প্রতিবেদক ।।  সমালোচনা যেন পিছু ছাড়ছে না পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের। শেখ হাসিনাকে টি.....

ন্যাশনাল ডিফেন্স কোর্সে অংশগ্রহণকারীদের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় পরিদর্শন

আইএসপিআর ।।  ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ (এনডিসি) কর্তৃক পরিচালিত ন্যাশনাল ডিফেন্স কোর্স-২০২২ এ অংশগ্রহণকারী বি.....