• ঢাকা
  • সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০ | ৪ ফাল্গুন, ১৪২৬

বিএনপি প্রার্থীদের চূড়ান্ত মনোনয়নের তালিকা

বিএনপি প্রার্থীদের চূড়ান্ত মনোনয়নের তালিকা

রংপুর বিভাগ

 

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর (ঠাকুরগাঁও-১)। রংপুর-১ মোকাররম হোসেন সুজন ও কামরুজ্জামান বাবু, রংপুর-২ ওয়াহিদুজ্জামান মামুন ও মোহাম্মদ আলী, রংপুর-৩ রিটা রহমান ও মোজাফফর আহমদ, রংপুর-৪ এমদাদুল হক ভরসা, আমিনুল ইসলাম রাঙ্গা ও খলিলুর রহমান, রংপুর-৫ সোলায়মান আলম ও ডা. মমতাজ, রংপুর-৬ সাইফুল ইসলাম। আবুল হাসান কায়কোবাদ (কুড়িগ্রাম-১), আবু বকর সিদ্দিক (কুড়িগ্রাম-২), তাসভীরুল ইসলাম ও আবদুল খালেক (কুড়িগ্রাম-৩), আজিজুর রহমান ও মোকলেসুর রহমান (কুডিগ্রাম-৪), লালমনিরহাট-৩ আসাদুল হাবীব দুলু। মোশারফ রহমান (লালমনিরহাট-১)। দিনাজপুর-১ মঞ্জুরুল ইসলাম, মামুনুর রশিদ, দিনাজপুর-২ সাদিক রিয়াজ ও পিনাক চৌধুরী, দিনাজপুর-৩ সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম ও মোফাজ্জল হোসেন দুলাল, দিনাজপুর-৪ হাফিজুর রহমান ও আক্তারুজ্জামান মিয়া, দিনাজপুর-৫ এজেডএম রেজওয়ানুল হক ও জাকারিয়া বাচ্চু, দিনাজপুর-৬ লুৎফর রহমান মিন্টু ও শাহীনুর ইসলাম মণ্ডল। ন্যান্সি রহমান ও রফিকুল ইসলাম (নীলফামারী-১), বেবী নাজনীন ও আমজাদ হোসেন (নীলফামারী-৪)।

 

বরিশাল বিভাগ

 

বরিশাল বিভাগে মনোনয়নপ্রাপ্তরা হলেন- মতিউর রহমান তালুকদার ও নজরুল ইসলাম মোল্লা (বরগুনা-১) আসনে, নুরুল ইসলাম মনি (বরগুনা-২), আলতাফ হোসেন চৌধুরী ও তার স্ত্রী সুরাইয়া আখতার চৌধুরী (পটুয়াখালী-১), শহীদুল আলম তালুকদার ও তার স্ত্রী সালমা আলম (পটুয়াখালী-২), হাসান মামুন ও মো. শাহজাহান (পটুয়াখালী-৩), এবিএম মোশাররফ হোসেন ও মনিরুজ্জামান মুনির (পটুয়াখালী-৪)। শাহজাহান ওমর (ঝালকাঠি-১), রফিকুল ইসলাম জামাল, ইসরাত সুলতানা ইলেন ভুট্টো ও জেবা খান (ঝালকাঠি-২)। রুহুল আমিন দুলাল ও শাহজাহান মিয়া (পিরোজপুর-৩)। জহিরউদ্দিন স্বপন ও আবদুস সোবহান (বরিশাল-১), সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সরফুদ্দিন আহমেদ সান্টু ও শহিদুল হক জামাল (বরিশাল-২), জয়নুল আবেদীন ও সেলিমা রহমান (বরিশাল-৩), মেজবাহ উদ্দিন ফরহাদ ও রাজীব আহসান (বরিশাল-৪), মজিবর রহমান সরোয়ার ও এমাদুল হক চাঁন (বরিশাল-৫), আবুল হোসেন খান ও রশিদ খান (বরিশাল-৬)। ভোলা-২ আসনে হাফিজ ইব্রাহিম ও রফিকুল ইসলাম মনি, ভোলা-৩ আসনে মেজর (অব.) হাফিজউদ্দিন আহমেদ ও কামাল হোসেন, ভোলা-৪ আসনে নাজিমউদ্দিন আলম ও মো. নুরুল ইসলাম নয়ন। ভোলা-১ ও পিরোজপুর-১ আসন ফাঁকা রাখা হয়েছে। এ দুটি আসন জোটের শরিকদের দেয়া হবে। ভোলা-১ বিজেপি চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থ ও পিরোজপুর-১ জাপা (কাজী জাফর) মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দারকে ছেড়ে দেয়া হতে পারে। এ ছাড়া পিরোজপুর-২ আসনটিও জোটকে দেয়া হতে পারে। তবে রাতে পিরোজপুর-১ ব্যারিস্টার সারোয়ার হোসেনকে চিঠি দেয়া হয়।

 

রাজশাহী বিভাগ

 

খালেদা জিয়া (বগুড়া-৬ ও ৭), মো. আমিনুল হক (রাজশাহী ১), মিজানুর রহমান মিনু ও সাঈদ হাসান (রাজশাহী-২), একেএম মতিউর রহমান মন্টু ও শফিকুল হক মিলন (রাজশাহী-৩), মো. নাদিম মোস্তফা, মো. আবু হেনা, মো. নুরুজ্জামান খান মনির ও মো. আ. গফুর (রাজশাহী ৪), আবু সাঈদ চাঁদ ও মো. নুরুজ্জামান খান মানিক (রাজশাহী-৬)। ফয়সাল আলীম ও মো. ফজলুর রহমান (জয়পুরহাট-১), মো. খলিলুর রহমান ও ইঞ্জি. গোলাম মোস্তফা (জয়পুরহাট-২)। ডা. সালেক চৌধুরী, মোস্তাফিজুর রহমান ও মাসুদ রানা (নওগাঁ-১), শামসুজ্জামান খান ও খাজা নজিব উল্লাহ চৌধুরী (নওগাঁ-২), রবিউল আলম বুলেট ও পারভেজ আরেফীন সিদ্দিকী (নওগাঁ-৩), শামসুল আলম প্রামাণিক ও একরামুল বারী দীপু (নওগাঁ-৪), জাহিদুল ইসলাম ও নজমুল হক সনি (নওগাঁ-৫), আলমগীর কবির ও শেখ রেজাউল ইসলাম রেজু (নওগাঁ-৬)। মো. শাহজাহান মিয়া ও বেলালী বাকী ইদ্রিসি (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১), বাইরুল ইসলাম (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২), আবদুল ওয়াহেদ ও হারুনর রশীদ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩)।

 

কনকচাঁপা ও নাজমুল হাসান রানা (সিরাজগঞ্জ-১), ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও তার স্ত্রী রুমানা মাহমুদ (সিরাজগঞ্জ-২), আবদুল মান্নান তালুকদার ও আইনুল হক (সিরাজগঞ্জ-৩), সিরাজগঞ্জ-৪, জামায়াতকে দেয়া হবে। রকিবুল করিম খান পাপ্পু ও আমিরুল ইসলাম খান আলিম (সিরাজগঞ্জ-৫), কামরুদ্দিন ইয়াহিয়া খান মজলিশ ও এমএ মুহিত (সিরাজগঞ্জ-৬)। কামরুন্নাহার শিরিন ও তাইফুল ইসলাম টিপু (নাটোর-১), রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু ও তার স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন ছবি (নাটোর-২), দাউদার মাহমুদ ও আনোয়ার ইসলাম আনু (নাটোর-৩), আবদুল আজিজ (নাটোর-৪)। একেএম সেলিম রেজা হাবিব (পাবনা-২)।

 

চট্টগ্রাম বিভাগ

 

নোয়াখালী ১ ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন ও মামুনুর রশিদ মামুন, নোয়াখালী-২ জয়নুল আবেদীন ফারুক ও জাফর ইকবাল, নোয়াখালী-৩ বরকত উল্লাহ বুলু, ডা. কাজী মাযহারুল ইসলাম, নোয়াখালী-৪ মোহাম্মদ শাহজাহান, মোসাম্মৎ শাহীনুর বেগম, নোয়াখালী ৫ ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, নোয়াখালী-৬ ফজলুল আজিম। কক্সবাজার-১ হাসিনা আহম্মেদ, কক্সবাজার-৩ লুৎফুর রহমান কাজল, কক্সবাজার-৪ মো. সালাহউদ্দিন ও শাজাহান চৌধুরী। বান্দরবান সাচিং প্রু জেরি, উম্মে কুলসুম সুলতানা, রাঙ্গামাটি দীপেন দেওয়ান ও মনি স্বপন দেওয়ান, খাগড়াছড়ি আবদুল ওয়াদুদ ভূঁইয়া।

 

দ্বিতীয় দিন মঙ্গলবার বিএনপি খুলনা, সিলেট বিভাগ, ময়মনসিংহ সাংগঠনিক বিভাগ এবং ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিভাগের আংশিক আসনে প্রার্থীদের মনোনয়ন দেয়। দ্বিতীয় দিনে যারা মনোনয়ন পেলেন-

 

ঢাকা বিভাগ

 

ঢাকা-২ আমানউল্লাহ আমান ও তার ছেলে ইরফান ইবনে আমান, ঢাকা-৩ গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও তার পুত্রবধূ নিপুণ রায় চৌধুরী, ঢাকা-৪ সালাহউদ্দিন আহমেদ ও তার পুত্র তানভীর আহমেদ রবীন, ঢাকা-৫ নবী উল্লাহ নবী ও অধ্যক্ষ সেলিম ভূঁইয়া, ঢাকা-৬ ইঞ্জি. ইশরাক হোসেন ও কাজী আবুল বাশার, ঢাকা-৮ মির্জা আব্বাস, সাজ্জাদ জহির, ঢাকা-৯ আফরোজা আব্বাস, মির্জা আব্বাস ও হাবিবুর রশীদ হাবিব, ঢাকা-১০ আবদুল মান্নান, ব্যারিস্টার নাসিরউদ্দিন অসীম ও শেখ রবিউল আলম রবি, ঢাকা-১১ শামীম আরা বেগম ও এজিএম শামসুল হক, ঢাকা-১২ সাইফুল আলম নিরব ও আনোয়ারুজ্জামান আনোয়ার, ঢাকা-১৩ আবদুস সালাম ও আতাউর রহমান ঢালী, ঢাকা-১৪ এসএ সিদ্দিক সাজু ও সাবেক ফুটবলার আমিনুল হক, ঢাকা-১৫ মামুন হাসান, ঢাকা-১৬ অধ্যাপক সাহিদা রফিক, আহসান উল্লাহ হাসান ও মোয়াজ্জেম হোসেন, ঢাকা-১৭ জামান কামাল, মেজর জেনারেল (অব.) রুহুল আলম চৌধুরী ও ফরহাদ হালিম ডোনার, ঢাকা-১৮ এসএম জাহাঙ্গীর ও বাহাউদ্দিন সাদী, ঢাকা-১৯ দেওয়ান সালাহউদ্দিন আহমেদ, ঢাকা-২০ ব্যারিস্টার জিয়াউর রহমান।

 

নারায়ণগঞ্জ-১ অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার, কাজী মনিরুজ্জামান মনির ও মোস্তাফিজুর রহমান ভূঁইয়া দীপু, নারায়ণগঞ্জ-২ মাহমুদুর রহমান সুমন, আতাউর রহমান খান আঙুর ও নজরুল ইসলাম আজাদ, নারায়ণগঞ্জ-৩ আজহারুল ইসলাম মান্নান ও খন্দকার আবু জাফর, নারায়ণগঞ্জ-৪ মোহাম্মদ শাহ আলম ও অধ্যাপক মামুন মাহমুদ এবং নারায়ণগঞ্জ-৫ অ্যাডভোকেট আবুল কালাম ও মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। তবে এই আসন থেকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে এসএম আকরামের নাম রয়েছে। নরসিংদী-১ খায়রুল কবীর খোকন, নরসিংদী-২ ড. আবদুল মঈন খান, নরসিংদী-৩ সানাউল্লাহ মিয়া, মঞ্জুর এলাহী ও আকরামুল হাসান, নরসিংদী-৪ সরদার সাখাওয়াত হোসেন বকুল ও আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, মুন্সীগঞ্জ-১ শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন, মুন্সীগঞ্জ-২ মিজানুর রহমান সিনহা, মুন্সীগঞ্জ-৩ আবদুল হাই। গাজীপুর-১ চৌধুরী তানভীর আহমেদ সিদ্দিকী, গাজীপুর-২ সালাহউদ্দিন সরকার ও মঞ্জুরুল করিম রনি, গাজীপুর-৩ আসনটি জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জন্য ফাঁকা রাখা হয়েছে, গাজীপুর-৪ রিয়াজুল হান্নান শাহ, গাজীপুর-৫ ফজলুল হক মিলন ও মনির হোসেন। ফরিদপুর-১ খন্দকার নাছিরুল ইসলাম ও শাহ মো. আবু জাফর, ফরিদপুর-২ শামা ওবায়েদ ইসলাম রিংকু ও শহিদুল ইসলাম বাবুল, ফরিদপুর-৩ চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ ও নায়েবা ইউসুফ, ফরিদপুর-৪ ইকবাল হোসেন খন্দকার সেলিম ও শাহরিয়ার ইসলাম শায়লা। রাজবাড়ী-১ আলী নেওয়াজ মুহাম্মদ খৈয়ম, রাজবাড়ী-২ নাসিরুল হক। গোপালগঞ্জ-১ সেলিমুজ্জামান সেলিম, গোপালগঞ্জ-২ সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, গোপালগঞ্জ-৩ এসএম জিলানি। মাদারীপুর-১ সাজ্জাদ হোসেন লাভলু সিদ্দিকী, মাদারীপুর-২ মিল্টন বৈদ্য, মাদারীপুর-৩ আনিসুর রহমান খোকন তালুকদার। শরীয়তপুর-১ সরদার নাছির উদ্দিন কালু, শরীয়তপুর-২ শফিকুর রহমান কিরণ, শরীয়তপুর-৩ মিয়া নুরুদ্দিন অপু। কিশোরগঞ্জ-১ রেজাউল করিম খান চুন্নু, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. শরীফুল ইসলাম শরীফ এবং জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খালেদ সাইফুল্লাহ সোহেল, কিশোরগঞ্জ-২ সাবেক সংসদ সদস্য মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান রঞ্জন, কিশোরগঞ্জ-৩ অ্যাডভোকেট জালাল মোহাম্মদ গাউস, ভিপি সাইফুল ইসলাম সুমন, কিশোরগঞ্জ-৪ বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট মো. ফজলুর রহমান, সুরঞ্জন ঘোষ, কিশোরগঞ্জ-৫ শেখ মুজিবুর রহমান ইকবাল ও তার ছেলে মাহমুদুর রহমান উজ্জ্বল, কিশোরগঞ্জ-৬ বিএনপি সভাপতি মো. শরীফুল আলম। টাঙ্গাইল-১ ফকির মাহবুব আনাম স্বপন ও সরকার শহীদ, টাঙ্গাইল-২ সুলতান সালাউদ্দিন টুকু ও শামছুল আলম তোফা, টাঙ্গাইল-৩ মাঈনুল ইসলাম ও লুৎফর রহমান খান আজাদ, টাঙ্গাইল-৪ লুৎফর রহমান মতিন ও ইঞ্জি. আবদুল হালিম, টাঙ্গাইল-৫ মেজর জে. (অব.) মাহমুদুল হাসান ও ছাইদুল হক ছাদু, টাঙ্গাইল-৬ অ্যাডভোকেট গৌতম চক্রবর্তী ও ন–র মোহাম্মদ খান ও টাঙ্গাইল-৭ আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী ও সাইদুল ইসলাম খান, টাঙ্গাইল-৮ আসন এখনও ঘোষণা করা হয়নি। এ আসনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী দেয়া হবে বলে জানা গেছে।

 

ময়মনসিংহ

 

ময়মনসিংহ-১ অ্যাডভোকেট আফজাল এইচ খান, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, আলী আসগর ও সালমান ওমর রুবেল, ময়মনসিংহ-২ শাহ শহীদ সারোয়ার ও অ্যাডভোকেট আবুল বাশার আকন্দ, ময়মনসিংহ-৩ ইঞ্জি. এম ইকবাল হোসাইন, আহাম্মদ তায়েবুর রহমান হিরণ ও ডা. মো. আবদুস সেলিম, ময়মনসিংহ-৪ মো. আবু ওয়াহাব আকন্দ ওয়াহিদ ও ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, ময়মনসিংহ-৫ মোহাম্মদ জাকির হোসেন বাবলু, ময়মনসিংহ-৬ ইঞ্জি. শামসুদ্দিন আহমদ ও মো. আকতারুল আলম ফারুক, ময়মনসিংহ-৭ ডা. মাহবুবুর রহমান লিটন, জয়নাল আবেদীন ও আমিন সরকার, ময়মনসিংহ-৮ শাহ নুরুল কবির শাহীন ও লুৎফুল্লাহেল মাজেদ বাবু, ময়মনসিংহ-৯ খুররম খান চৌধুরী ও ইয়াসের খান চৌধুরী, ময়মনসিংহ-১০ এবি সিদ্দিকুর রহমান ও আকতারুজ্জামন বাচ্চু, ময়মনসিংহ-১১ ফকরুদ্দিন আহমদ বাচ্চু ও মোর্শেদ আলম, নেত্রকোনা-১ ব্যারিস্টার কায়সার কামাল ও গোলাম রব্বানী, নেত্রকোনা-২ আশরাফ উদ্দিন খান ও এটিএম আবদুল বারী ড্যানী, নেত্রকোনা-৩ রফিকুল ইসলাম হিলালী ও মো. দেলোয়ার হোসেন ভূঁইয়া দুলাল, নেত্রকোনা-৪ তাহমিনা জামান শ্রাবণী ও চৌধুরী আবদুল্লাহ আল ফারুক, নেত্রকোনা-৫ আবু তাহের তালুকদার ও রাবেয়া আলী, জামালপুর-১ এম রশিদুজ্জামান (মিল্লাত) ও আবদুল কাইয়ুম, জামালপুর-২ সুলতান মাহমুদ বাবু, এএসএম আবদুল হালিম, জামালপুর-৩ মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল ও ব্যারিস্টার বাদল, জামালপুর-৪ ফরিদুল কবির তালুকদার শামীম, জামালপুর-৫ শাহ মো. ওয়ারেছ আলী মামুন ও সিরাজুল হক, শেরপুর-১ মো. হজরত আলী, শেরপুর-২ একেএম মোখলেছুর রহমান রিপন ও ব্যারিস্টার হায়দার আলী, শেরপুর-৩ মাহমুদুল হক রুবল।

 

খুলনা বিভাগ

 

খুলনা-১ আমীর এজাজ খান, খুলনা-২ নজরুল ইসলাম মঞ্জু, খুলনা-৩ রকিবুল ইসলাম বকুল, খুলনা-৪ আজিজুল বারী হেলাল ও শরীফ শাহ কামাল তাজ, খুলনা-৫ ড. মামুন রহমান, ডা. গাজী আবদুল হক। নড়াইল-১ বিশ্বাস জাহাঙ্গীর আলম, নড়াইল-২ ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপির) চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ ধানের শীষ প্রতীক পেয়েছেন। সাতক্ষীরা-১ হাবিবুল ইসলাম হাবিব, মেহেরপুর-১ জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক এমপি মাসুদ অরুণ, মেহেরপুর-২ জাভেদ মাসুদ মিল্টন, চুয়াডাঙ্গা-১ বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও কৃষক দলের সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান দুদু, চুয়াডাঙ্গা-২ মাহমুদ হাসান খান ওরফে বাবু খান। কুষ্টিয়া-১ রেজা আহমেদ বাচ্চু মোল্লা ও রমজান আলী, কুষ্টিয়া-২ ব্যারিস্টার রাগীব রউফ চৌধুরী ও ফরিদা ইয়াসমিন, কুষ্টিয়া-৩, অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন ও জাকির হোসেন সরকার, কুষ্টিয়া-৪ সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী ও নুরুল ইসলাম আনসার প্রামাণিক, ঝিনাইদহ-১ কেন্দ্রীয় মানবাধিকারবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান আসাদ এবং বিভাগীয় সহসাংগঠনিক সম্পাদক জয়ন্ত কুমার কুণ্ডু, ঝিনাইদহ-২ এসএম মশিউর রহমান এবং এমএ মজিদ, ঝিনাইদহ-৩ আসনে কণ্ঠশিল্পী মনির খান ও শহিদুল ইসলাম মাস্টারের ছেলে মেহেদী হাসান রনি, ঝিনাইদহ-৪ স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, মাগুরা-১ মনোয়ার হোসেন খান, মাগুরা-২ নিতাই রায় চৌধুরী ও মোজাফফর হোসেন টুকু, যশোর-১ আসনে মফিজুল হাসান তৃপ্তি ও হাসান জহির, যশোর-৩ অনিন্দ্য ইসলাম অমিত ও সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু, যশোর-৪ টিএস আইয়ুব, মতিয়ার রহমান ফারাজী, সুকৃতি কুশার মণ্ডল, যশোর-৬ অমলেন্দু দাস অপু, আবুল হোসেন আজাদ ও আবদুস সামাদ বিশ্বাস। বাগেরহাট-১ শেখ মুজিবুর রহমান ও মাসুদ রানা, বাগেরহাট-২ জেলা বিএনপির সভাপতি এমএ সালাম ও আকরাম হোসেন, বাগেরহাট-৩ ড. শেখ ফরিদুল ইসলাম, বাগেরহাট-৪ খায়রুজ্জামান শিপন ও অধ্যক্ষ আবদুল আলিম (জামায়াত)।

 

সিলেট বিভাগ

 

সিলেট-১ ইনাম আহমদ চৌধুরী ও খন্দকার আবদুল মুক্তাদির, সিলেট-২ তাহসিনা রুশদীর লুনা, সিলেট-৩ শফি আহমদ চৌধুরী ও ব্যারিস্টার এমএ সালাম, সিলেট-৪ আসনের দিলদার হোসেন সেলিম ও অ্যাডভোকেট শামসুজ্জামান জামান, সিলেট-৬ ফয়সল আহমদ চৌধুরী। সুনামগঞ্জ-১ নজির হোসেন, কামরুজ্জামান কামরুল ও আনিসুল হক, সুনামগঞ্জ-২ নাছির উদ্দিন চৌধুরী ও তাহির রায়হান চৌধুরী, সুনামগঞ্জ-৪ ফজলুল হক আসপিয়া ও দেওয়ান জয়নুল জাকেরিন, সুনামগঞ্জ-৫ কলিম উদ্দিন আহমদ ও মিজানুর রহমান চৌধুরী। মৌলভীবাজার-১ এবাদুর রহমান চৌধুরী ও নাসির উদ্দিন আহমদ মিঠু, মৌলভীবাজার-২ সুলতান মুহাম্মদ মনসুর (জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট), মৌলভীবাজার-৩ এম নাসের রহমান ও রেজিনা নাসের, মৌলভীবাজার-৪ মুজিবুর রহমান চৌধুরী ও মুঈদ আশিক চিশতী। হবিগঞ্জ-২ আসনে সাখাওয়াত হোসেন জীবন, হবিগঞ্জ-৩ আসনে জিকে গউছ।

 

চট্টগ্রাম বিভাগ

 

চট্টগ্রাম-১ কামাল উদ্দিন আহমেদ, নুরুল আমিন ও মনিরুল ইসলাম ইউসুফ, চট্টগ্রাম-২ গোলাম আকবর খন্দকার, ডা. খুরশিদ জামিল চৌধুরী ও মো. সালাহউদ্দিন, চট্টগ্রাম-৩ মোস্তফা কামাল পাশা ও নুরুল মোস্তফা খোকন, চট্টগ্রাম-৪ (সীতাকুণ্ড) লায়ন আসলাম চৌধুরী ও এওয়াইবি সিদ্দিকী, চট্টগ্রাম-৫ (হাটহাজারী) মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দীন ও ব্যারিস্টার শাকিলা ফারজানা, চট্টগ্রাম-৭ (রাঙ্গুনিয়া) কুতুব উদ্দিন বাহার ও শওকত আলীনুর, চট্টগ্রাম-৮ (বোয়ালখালী-চান্দগাঁও) মোরশেদ খান ও আবু সুফিয়ান, চট্টগ্রাম-৯ ডা. শাহাদাত হোসেন ও শামসুল আলম, চট্টগ্রাম-১০ আবদুল্লাহ আল নোমান ও মোশাররফ হোসেন দীপ্তি, চট্টগ্রাম-১৩ (আনোয়ারা) সারওয়ার জামাল নিজাম ও মোস্তাফিজুর রহমান। চট্টগ্রাম-১৬ (বাঁশখালী) আসনে জাফরুল ইসলাম চৌধুরী, কুমিল্লা-১ ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও এমকে আনোয়ারের ছেলে, কুমিল্লা-২ ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও তার ছেলে খন্দকার মারুফ হোসেন, কুমিল্লা-৩ অধ্যাপক ড. শাহিদা রফিক, কুমিল্লা-৫ শওকত মাহমুদ ও অধ্যাপক মোহাম্মদ ইউনুস, কুমিল্লা-৬ আসনে হাজী আমিনুর রশিদ ইয়াসিন। লক্ষ্মীপুর-১ জোটের শরিকদের জন্য, লক্ষ্মীপুর-২ আবুল খায়ের ভূঁইয়া ও হারুন-অর রশীদ, লক্ষ্মীপুর-৩ শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী ও সাহাব উদ্দিন সাবু, লক্ষ্মীপুর-৪ আশরাফ উদ্দিন নিজান ও শফিউল বারী বাবু। চাঁদপুর-১ এহসানুল হক মিলন ও মোশারফ হোসেন, চাঁদপুর-২ ড. জালালউদ্দিন ও তানভীর হুদা, চাঁদপুর-৩ ফরিদ আহমেদ মানিক ও রাশেদা বেগম হীরা, চাঁদপুর-৪ সাবেক এমপি লায়ন হারুন অর রশীদ ও এম হান্নান, চাঁদপুর-৫ ইঞ্জি. মমিনুল হক ও এমএ মতিন। ফেনী-২ ভিপি জয়নাল, ফেনী-৩ আবদুল লতিফ জনি ও আকবর হোসেন।

 

২০-দলীয় জোটের শরিকরা যেসব আসন পেলেন

২০-দলীয় জোটের শরিকরা ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করবেন। মঙ্গলবার বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত মনোনয়নের চিঠি তাদের দেয়া হয়েছে। জাতীয় পার্টিকে পাঁচটি আসনে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। তারা হলেন- দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান টিআই ফজলে রাব্বি (গাইবান্ধা-১), মোস্তফা জামাল হায়দার (পিরোজপুর-১), এসএমএম আলম (চাঁদপুর-৩), আহসান হাবীব লিংকন (কুষ্টিয়া-২) ও সেলিম মাস্টার (ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩)। এ ছাড়া ভোলা-১ আসনে বিজেপির আন্দালিব রহমান পার্থ, নড়াইল-২ এনপিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহমেদ, চট্টগ্রাম-৫ আসনে কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মোহাম্মদ ইবরাহিম, চট্টগ্রাম-১৪ আসনে এলডিপির অলি আহমেদ, কুমিল্লা-৭ রেদোয়ান আহমেদ, লক্ষ্মীপুর-১ আসনে সাহাদাত হোসেন সেলিম, সুনামগঞ্জ-৩ আসনে জমিয়তে উলামায়ে ইসলামীর শাহিনুর পাশা।

 

নাগরিক ঐক্যকে ৯ আসন : জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শরিক মাহমুদুর রহমান মান্নার নাগরিক ঐক্যকে ৯ আসন দিচ্ছে বিএনপি। এই ৯ জনের বেশিরভাগ নেতাকে সোমবার রাতে মনোনয়নের চিঠি দেয়া হয়েছে। নাগরিক ঐক্য থেকে যারা ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করবেন তারা হলেন- বগুড়া-২ আসনে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে ঐক্যের উপদেষ্টা এসএম আকরাম, ময়মনসিংহ-২ আসনে অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনে মোবারক হোসেন, চাঁদপুর-৩ আসনে ফজলুল হক সরকার, সাতক্ষীরা-২ আসনে রবিউল ইসলাম, রংপুর-১ আসনে শাহ মো. রহমতউল্লাহ, রংপুর-৫ আসনে মোফাখখারুল ইসলাম নবাব, বরিশাল-৪ আসনে কেএম নুরুর রহমান।

খালেদার প্যারোল বিষয়ে আইন অনু.....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন : আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানিয়েছেন, সুনির্দিষ্টভাবে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদনের পরই বেগম .....

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ক.....

স্টাফ রিপোর্টার : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘সারাদেশের সব শহীদ মিনার এবং সব গুরুত্বপ.....

মুজিববর্ষের শ্রেষ্ঠ উপহার থা.....

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা : মুজিববর্ষের শ্রেষ্ঠ উপহার থাকবে বিশ্বকাপ জয়ী বাংলাদেশী টাইগারযুবাদের। দেশে ফিরলে ত.....

বিশ্বমানের সশস্ত্র বাহিনী গড়.....

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা : আধুনিক বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশের সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তোলা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্.....

পরীক্ষা নিয়ে গুজব ছড়ালে কাউকে .....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন : সোমবার ( ৩ ফেব্রুয়ারি  ) সকালে রাজধানীর তেজগাঁও সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর.....

ভেজাল দেবো না, ভেজাল খাবো না, কা.....

ওয়াসিম এমদাদ : গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি বলেছেন, "আমি নিজে ভেজ.....

৯৯৯ নম্বরে এক বছরে দুই কোটি কল .....

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট : রোববার দুপুরে সিলেট পুলিশ লাইন্সে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ও অস্ত্রাগারের উদ্ব.....

বিমান ছিনতাই চেষ্টার মামলার চ.....

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা থেকে রওনা হয়ে মাঝ আকাশে বিমান ছিনতাইচেষ্টার মামলাটির চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা দি.....

ই-পাসপোর্ট জাতির জন্য মুজিব বর.....

স্টাফ রিপোর্টার : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশে ই-পাসপোর্ট কর্মসূচি এবং স্বয়ংকৃত বর্ডার নিয়ন্ত্রণ ব্.....

একনেক সভায় ৮ প্রকল্প অনুমোদন .....

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা : দেশের ৩২৯টি উপজেলায় টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ (টিএসসি) নির্মাণ করা হবে। এতে সরকার খরচ কর.....

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির প.....

স্টাফ রিপোর্টার : জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকল.....

মুক্তিযোদ্ধাদের অসচ্ছল থাকা .....

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা : জাতির সুর্য সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের অসচ্ছল থাকাটা রাষ্ট্রের জন্য লজ্জার বলে মন্তব্য .....