• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৭ Jul ২০২২ | ২২ আষাঢ়, ১৪২৯

কুষ্টিয়ার গ্রামাঞ্চল থেকে হারিয়ে যাচ্ছে ‘মাটির ঘর বাড়ি’

কুষ্টিয়ার গ্রামাঞ্চল থেকে হারিয়ে যাচ্ছে ‘মাটির ঘর বাড়ি’

সামরুজ্জামান (সামুন), কুষ্টিয়া ।।  কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে মাটির দেয়াল ও খড়ের ছাউনির তৈরি ঘর। অথচ এক সময় কুষ্টিয়ার গ্রামাঞ্চলে বাংলার ঐতিহ্য বহন করত মাটির দেয়াল ও খড়ের ছাউনির ‘গরিবের এসি’ খ্যাত মাটির ঘরগুলো এখন বিলুপ্তির পথে। কালের বিবর্তনে ও আধুনিকতার ছোঁয়ায় খড়ের তৈরি ঘর চোখে তেমন একটা পড়ে না বললেই চলে। খুব বেশি দিন আগের কথা নয়, যেখানে প্রতিটি গ্রামে চোখে পড়তো প্রায় এক-তৃতীয়াংশ মাটির দেয়াল বিশিষ্ট খড়ের ছাউনির তৈরি ঘর। অথচ ইদানিং উপজেলার বেশ কয়েকটি ইউনিয়ন ঘুরেও সেই মাটির দেয়াল বিশিষ্ট খড়ের তৈরি ঘর তেমনটা আর চোখে পড়েনা। মাটির দেয়াল ও খড়ের ছাউনির কাজে নিয়োজিতদের অনেকেই ইতোমধ্যে তাদের পেশা পরিবর্তন করে নিয়েছেন। উপজেলার চাপড়া ইউনিয়নের ছেঁউড়িয়া গ্রামের পেশা পরিবর্তনকারী ফারুক ঘরামি জানান, আগেকার দিনের মাটির তৈরি দেয়াল ও খড়ের ছাউনির তৈরি ঘরের জায়গাগুলো দখল করে নিয়েছে ইট, বালি, সিমেন্ট, লোহার রড, টিন ও কংক্রিটের বøকের তৈরি বড় বড় বিল্ডিং-অট্টালিকা। বিল্ডিং তৈরিতে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতির ব্যবহার বেড়ে যাওয়ায় তারাও কর্ম হারিয়েছে। ফলে মাটির দেয়াল বিশিষ্ট খড়ের ছাউনির ঘর বিলুপ্ত হয়ে যাওয়ায় তিনিও পেশা পরিবর্তন করে টিনের ছাউনির কাজ বেছে নিয়েছেন। একই কথা জানিয়েছেন নসিমন ঘরামি ও এরশাদ ঘরামি । তাছাড়া অনেকেই পেশা পরিবর্তন করে বিভিন্ন পেশা বেছে নিয়েছেন। খোকসা গোপগ্রামের বিশিষ্ট সমাজসেবক হাসু জানান, ৩০-৩৫ আগে তার বাড়িটি ছিল মাটির দেওয়াল বিশিষ্ট দুই চালা খড়ের ছাউনির ঘর। শুধু তাই নয় পাশে অনেকেই ছিল খড়ের ছাউনির ঘর। বাড়ির সামনে ছিল বড়োসড়ো একটি বৈঠক খানা। সেখানে স্থানীয় বিরোধপূর্ণ সালিশের মাধ্যমে মীমাংসা করা হতো। মাটির দেয়াল বিশিষ্ট ঘরের খড়ের ছাউনি থাকার ফলে গরমের সময় ঠান্ডা ও ঠান্ডার সময় গরম অনুভূত হতো। ওই জায়গাটি দখল করেছে এসি নামের একটি বৈদ্যুতিক মেশিন। সেই সময় ঘরের চালের ছাউনির উপর নির্ভর করেও অনেকের ব্যক্তিত্ব পরিমাপ করা হতো। অথচ ইট, বালি, লোহার রড ও সিমেন্ট, ও বর্তমানে অত্যাধুনিক কংক্রিট বøকের ভিড়ে মাটির দেয়াল ও খড়ের ছাউনির ঘর তার অস্তিত্ব হারাচ্ছে। কুষ্টিয়া জেলার সদর উপজেলার আমানতপুর গ্রামের মৃত নাদের মালিথা ছেলে আলেফ ফকির (৬৫) বাড়িতে গিয়ে দেখা মেলে মাটির দেয়াল বিশিষ্ট খড়ের ছাউনির একটি ঘর। আলেফ ফকির জানান, তিনি পেশায় একজন দিনমজুর ও সাধু তন্ত্রের মানুষ। সংসারের ব্যয় নির্বাহ করে বাড়তি অর্থ গচ্ছিত সম্ভব হয়নি। ফলে আধুনিকতার ছোঁয়া তাকে স্পর্শ করতে পারেনি। গ্রামের অন্য সকলে বাড়ি ঘরের চেহারা পরিবর্তন করলেও অর্থের অভাবে তিনি রয়ে গেছেন সেই পুরানো ঐতিহ্যে। প্রতি ১-২ বছরে একবার খড় পরিবর্তন করতে হয়। এ ধরনের খড়ের ছাউনি কাজে নিয়োজিত অনেকেই পেশা পরিবর্তন করার ফলে খড়ের ছাউনি করাতেও অনেক বেগ পেতে হচ্ছে। কুষ্টিয়া সদর উপজেলার আমানতপুর গ্রামের মৃত ভাসা মালিথার ছেলে রিয়াজ মালিথা বলেন, আমি প্রায় ৪৫ বছর আগে থেকেই মাটির ঘরে বসবাস করে আসছি। বাবা-মার হাতে গড়া এই গরিবের এসি মাটির ঘর। আমি পেশায় একজন চা বিক্রেতা। পূর্বের তুলনায় মানুষের আর্থ সামাজিক অবস্থার উন্নতির সাথে সাথে জীবন যাত্রার মানের ও উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। আর তাই হারিয়ে যেতে বসেছে বাঙালিদের চিরচেনা ঐতিহ্যবাহী মাটির দেয়াল বিশিষ্ট খড়ের ছাউনি ঘরের চিহ্নটি। হয়তো সেই দিন আর বেশি দুরে নয়, খড়ের ছাউনির ঘরের কথা মানুষের মন থেকে চিরতরে হারিয়ে যাবে। আগামী প্রজম্ম রূপকথার গল্পে এই ঘরকে স্থান দিতে স্বাছন্দবোধ করবে।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তীব্র যানজট

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি ।।  ঈদকে কেন্দ্র করে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জ অংশে ৫ কিলোমিটার জুড়ে তীব্র.....

টুঙ্গিপাড়ায় দুঃস্থ মানুষের মাঝে ঈদ উপহার প্রদান করেছে সেনাবাহিনী

নিজস্ব প্রতিবেদক ।।  সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতি বিজ.....

আফগানিস্তানে জরুরী ত্রাণ সামগ্রী প্রেরণ

আইএসপিআর : আফগানিস্তানের দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে গত ২২ জুন  শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হানলে এতে সহস্রাধ.....

অনেক দেশেই বিদ্যুতের জন্য হাহাকার চলছে : প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক ।।  অনেক দেশেই এখন বিদ্যুতের জন্য হাহাকার চলছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, রাশিয়.....

গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা: হেনোলাক্স এর মালিকের বিরুদ্ধে মামলা

অনলাইন ডেস্ক ।।  রাজধানী ঢাকার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে গায়ে আগুন দিয়ে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও ঠিকাদার গাজী .....

গরুর ট্রাকে চাঁদাবাজি বরদাশত করা হবে না : আইজিপি

স্টাফ রিপোর্টার ।।  ঈদুল আজহা'কে ঘিরে পশু বহনের ট্রাকে কেউ চাঁদাবাজি করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে কড়া ব.....

‘ঈদের আগে পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলবে না’

অনলাইন ডেস্ক ।।  ঈদ-উল-আজহার আগে পদ্মা সেতু দিয়ে মোটরসাইকেল চলার সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ স.....

তৃতীয় দিনেও কমলাপুরে উপচেপড়া ভিড়

অনলাইন ডেস্ক ।।  কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রির তৃতীয় দিনেও কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন.....

হজের শেষ ফ্লাইট যাচ্ছে আজ

লাখোকণ্ঠ অনলাইন ।।  আগামী ৮ জুলাই পবিত্র হজ পালিত হবে। এ বছর হজের শেষ ফ্লাইট যাচ্ছে আজ রোববার (৩ জুলাই)। সরকা.....

বাংলাদেশ থেকে ৫০ হাজারের বেশি হজযাত্রী সৌদি পৌঁছেছেন

অনলাইন ডেস্ক ।।  আগামী ৮ জুলাই পবিত্র হজ পালিত হবে। এবার বাংলাদেশ থেকে ৫৭ হাজার ৫৮৫ জন হজ পালনে সৌদি যাওয়ার .....

সদরঘাটের সেই ব্যস্ততা আর নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক ।।  পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর থেকেই চিরচেনা সদরঘাটের ব্যস্ততা অনেকটাই কমতে শুরু করেছে। ব.....

ষড়যন্ত্রের কারণে পদ্মা সেতু নির্মাণে দু’বছর দেরি হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক ।।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশি-বিদেশি নানা ষড়যন্ত্রের কারণে পদ্মা সেতু নির্মাণে দ.....