• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২ | ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯
মুদ্রানীতি ঘোষণা আজ

মুদ্রা সরবরাহের লাগাম টেনে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা

মুদ্রা সরবরাহের লাগাম টেনে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা

নিজস্ব প্রতিবেদক ।।  মূল্যস্ফীতির লাগাম টানতে মুদ্রা সরবরাহ নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এ জন্য কমানো হচ্ছে বেসরকারি ঋণের লক্ষ্যমাত্রা। আর এ লক্ষ্য সামনে রেখেই আজ বৃহস্পতিবার আগামী অর্থবছরের (২০২২-২৩) জন্য নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এতে যেমন থাকছে টাকার বিপরীতে ডলারের মূল্য বেড়ে যাওয়ার চ্যালেঞ্জ, পাশাপাশি রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ এবং নতুন করে করোনা প্রাদুর্ভাবের প্রভাব। সাথে আরো থাকবে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি তেলের দাম বাড়লে তার চাপ। বিকেল ৩টায় বাংলাদেশ ব্যাংক গভর্নর ফজলে কবির তার মেয়াদের শেষ মুদ্রানীতি ঘোষণা করবেন। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, নতুন বছরের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হবে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রাখা। কারণ, মূল্যস্ফীতি বেড়ে যাওয়ার যতগুলো উপকরণ রয়েছে তার প্রায় সবগুলোই সক্রিয়। প্রথমত, আমাদের মতো আমদানিনির্ভর অর্থনীতিতে সবসময়ই টাকার মান ধরে রাখার চেষ্টা করা হয়। এ জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক রিজার্ভ থেকে সঙ্কটের সময় ব্যাংকগুলোর কাছে ডলার বিক্রি করে থাকে। বিগত সময়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এ নীতি কার্যকর হতো, কারণ তখন ডলারের চাহিদা ও জোগানের মধ্যে ভারসাম্য ছিল। কিন্তু চলতি বছর থেকে ডলারের চাহিদা ও জোগানের মধ্যে কোনো ভারসাম্য নেই। একদিকে রেমিট্যান্স কমে গেছে, সেই সাথে কাক্সিক্ষতহারে বাড়ছে না রফতানি আয়।

বিপরীতে আমদানি ব্যয় হু হু করে বেড়ে যাচ্ছে। বিশেষ করে রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে আন্তর্জাতিক বাজারে প্রায় সবধরনের পণ্যের দাম বেড়ে গেছে। ফলে আমদানিতে ব্যয় যতটা না বাড়ছে পরিমাণের দিক থেকে তার চেয়ে বেশি হারে বাড়ছে মূল্যের দিক থেকে। করোনার কারণে গত দ্ইু বছর ধরে এলসির মূল্য পরিশোধ বকেয়া রাখা হয়। জানুয়ারি থেকে মূল্য পরিশোধ শুরু হয়। সব মিলেই ডলারের ওপর চাপ বেড়ে যায়। এ চাপ সামাল দিতে এ পর্যন্ত বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে প্রায় সাড়ে ৭০০ কোটি ডলার সরবরাহ করেও পরিস্থিতি সামাল দেয়া যাচ্ছে না। ইতোমধ্যে ব্যাংকগুলোকে আমদানি বিল পরিশোধে প্রতি ডলার ৯৮-৯৯ টাকায় কিনতে হচ্ছে।

আর খোলা বাজারে তো আগেই প্রতি ডলার ১০৩ টাকা উঠে গিয়েছিল। তাই ডলারের এ সঙ্কট সহসাই কাটবে না। ডলারের সঙ্কট না কাটলে আমদানিকৃত পণ্যের দাম আপনাআপনিই বেড়ে যাবে। এতে স্থানীয় পণ্য তৈরিতেও চাপ বেড়ে যাবে। যার প্রভাব পড়বে মূল্যস্ফীতিতে। আগামী অর্থবছরের জন্য ঘোষিত মুদ্রানীতিতে এটাই সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা দেবে।

আবার ইতোমধ্যে গ্যাসের দাম বেড়ে গেছে। আগামী মাসে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি তেলের দাম বেড়ে যাওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। মূল্যস্ফীতি বেড়ে যাওয়ার এ দুটোও অন্যতম উপাদান বলে মনে করা হয়। কারণ, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি তেলের দাম বাড়লে পণ্য উৎপাদন, পরিবহন থেকে শুরু করে অর্থনীতির সবগুলো শাখার ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। নতুন মুদ্রানীতিতে এটাও অন্যতম প্রধান চ্যালেঞ্জ বলে মনে করা হচ্ছে।

মূল্যস্ফীতির এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কিছু উপকরণ ব্যবহার ছাড়া তেমন কোনো করণীয় নেই। যে কয়েকটি উপকরণ রয়েছে, তার অন্যতম প্রধান হলো টাকার প্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করা। অর্থাৎ বেসরকারি খাতে কম হারে ঋণ দেয়া। এজন্য আগামী অর্থবছরের জন্য যে মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হচ্ছে, তাতে বেসরকারি খাতের ঋণপ্রবাহ চলতি অর্থবছরের লক্ষ্যমাত্রা থেকে কমিয়ে আনা হচ্ছে। চলতি অর্থবছরে বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবাহের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১৪ দশমিক ৮ শতাংশ। গত মে মাস পর্যন্ত সাড়ে ১২ শতাংশ বাস্তবায়ন হয়েছে। নতুন অর্থবছরের মুদ্রানীতিতে বেসরকারি খাতে ঋণপ্রবাহ সাড়ে ১৪ শতাংশের ঘরে নামিয়ে আনা হতে পারে। তবে বাজেট ঘাটতি অর্থায়নে সরকারি খাতের ঋণপ্রবাহ কমবে না, বরং বেড়ে যাবে। একই সাথে অনুৎপাদনশীল খাতে ঋণপ্রবাহে নিরুৎসাহিত করার তাগিদ থাকবে নতুন মুদ্রানীতিতে।

বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমিতে রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত

আইএসপিআর || বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমি’র (বিএমএ) ৮৩তম বিএমএ দীর্ঘ মেয়াদী কোর্সের অফিসার ক্যাডেটদের কমিশনপ্.....

পদ্মা ও মেঘনা নামে নতুন বিভাগ করার সিদ্ধান্ত স্থগিত

লাখোকণ্ঠ অনলাইন ।।  কুমিল্লা ও ফরিদপুর অঞ্চলের জেলাগুলো নিয়ে ‘পদ্মা’ ও ‘মেঘনা’ নামে নতুন দুই বিভাগ ক.....

আবাদি জমি রক্ষায় পরিকল্পিত শিল্পায়নের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক ।।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি নিশ্চিত করতে আবাদি জমি রক্ষায় পরিকল্পিত&.....

সংকট সমাধানে যুবকরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে: প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক ।।  সংকট সমাধানে যুবকরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ.....

জাতীয় যুবদিবস ২০২২ উপলক্ষ্যে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগ

অনলাইন ডেস্ক || আগামীকাল ১ নভেম্বর (মঙ্গলবার) যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে দেশব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি ব.....

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে বিদায় ও বরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ।।  প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আমিনুল ইসলাম খানের বিদায় ও নবনিযুক্ত স.....

দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় প্রতিটি বাহিনীকে দক্ষ করে গড়ে তোলা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তাঁর সরকার দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় প্রতিটি বাহ.....

চিকিৎসার জন্য জার্মান ও যুক্তরাজ্যের উদ্দেশ্যে রাষ্ট্রপতির ঢাকা ত্যাগ

অনলাইন ডেস্ক : রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও চোখের চিকিৎসার জন্য জার্মানি ও যুক্তরাজ্যে ১৬ .....

সাকিবকে আর অ্যাম্বাসেডর হিসেবে ব্যবহার করবে না দুদক

অনলাইন ডেস্ক ।।  ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানকে আর দুদকের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে ব্যবহার করা হবে না। আ.....

পায়রা সমুদ্রবন্দরে আগামীকাল বেশ কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল পায়রা সমুদ্রবন্দরে আরও ভালো সুযোগ-সুবিধাসহ এর সুষ্ঠু কার্.....

চীন কখনো মুসলমানদের বিরুদ্ধে কাজ করে না : রাষ্ট্রদূত লি

অনলাইন ডেস্ক ।।  বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বলেছেন, এই অঞ্চলে উন্নয়ন, শান্তি ও স্থিতিশীল.....

রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে তীব্র যানজট

স্টাফ রিপোর্টার ।। ভোগান্তির আরেক নাম রাজধানীর বিমানবন্দর সড়ক। সামান্য বৃষ্টি হলেই গাজীপুরের টঙ্গী থেকে গ.....