• ঢাকা
  • বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২ | ১৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯

ক্যান্সার আক্রান্ত জনসংযোগবিদ লেখক ও গবেষক মির্জা তারেকের জন্য লেখক ফয়সল মোকাম্মেল এর মানবিক আবেদন !

ক্যান্সার আক্রান্ত জনসংযোগবিদ লেখক ও গবেষক মির্জা তারেকের জন্য লেখক ফয়সল মোকাম্মেল এর মানবিক আবেদন !

ফয়সল মোকাম্মেল এর ফেসবুক থেকে :

মির্জা তারেকের সাথে আমার বন্ধুত্ব চল্লিশ বছরেরও বেশি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে নতুন চালু হওয়া অনার্স কোর্সের প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থী হিসাবে আমরা যখন ক্লাশ শুরু করেছিলাম তখন আমরা ছিলাম নিছক মফস্বলের কলেজ থেকে পাশ করা গোবেচারা সদ্য কৈশোরোত্তীর্ণ দু’জন তরুন।

আমাদের সময় উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করা ২টি ব্যাচকে একত্র করে ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হয়েছিল। কঠিন পরীক্ষা। জাঁদরেল সব শিক্ষক ইন্টারভিউ বোর্ডে নানা যাচাই বাছাই করে তাঁদের শিক্ষার্থীদের নির্বাচন করেছিলেন। ঢাকার বাইরে থেকে আমরা যারা এসেছিলাম, অল্প ক’দিনের মধ্যেই ঢাকার বিভিন্ন অভিজাত কলেজ থেকে পাশ করা সহপাঠিরা আমাদের আপন করে নিয়েছিল। আমাদের কোনো বন্ধুই কখনোই তিলমাত্র আমাদের দূরে সরিয়ে রাখেনি। মনে হতো সবাই অনেক দিনের চেনা, আপনি থেকে তুমি, তুমি থেকে তুইতে নেমে আসতেও খুব বেশী সময় লাগলো না।

তারেক এবং আমি দু’জনই নোয়াখালীর, কুমিল্লা বোর্ড থেকে পাশ করা। কথাবার্তায় তখনও আমরা সপ্রতিভ নই, তবে প্রথম ক্লাশ থেকেই দুজন আপন হয়ে যাই। খুব দ্রুত আপনি থেকে তুমি , তুমি থেকে তুইতে নেমে আসি। আমরা দুজনই ছিলাম মাস্টারদা সূর্যসেন হলের এটাচড, ভর্তি হওয়ার কয়েকদিনের মধ্যেই হলে উঠে পড়ি। প্রথমে বড় ভাইদের রুম ভাগাভাগি করে থাকা। সেই থেকে শুরু । সাড়ে তিন ফুট প্রস্থের স্টিলের চৌকিতে ডাবলিং করেছি বহুদিন, পরে ৬২৮ নাম্বার রুম আমাদের দুজনের নামে বরাদ্দ হয়। সেই থেকে এখন পর্যন্ত আমরা আর বিচ্ছিন্ন হইনি। রুমে ওঠার কয়েকদিন পর ক্লাশ করে ফিরে এসে দেখি তারেক দরজার ওপর প্রেস গ্যালারি লিখে সেঁটে দিয়েছে।

রুমটি কয়েক মাসের মধ্যেই পরিচিত হয়ে ওঠে বন্ধু বান্ধবদের মধ্যে। আমাদের সব বন্ধুরা নিয়মিত আড্ডা দিতে আসতো। আমরা ছাত্রাবস্থাতেই বিভিন্ন পত্রিকায় কাজ করতাম, অনেক রাত করে ফিরতাম, তারপর মধ্যরাত পর্যন্ত ধুন্ধুমার আড্ডা। পরবর্তীতে আমাদের দুজনের নামে দুটি সিঙ্গেল রুম বরাদ্দ হলেও সেখানে আমরা আর উঠিনি। ৬২৮ নাম্বার রুমেই আমরা শেষ পর্যন্ত ছিলাম।

বিশ্ববিদ্যালয় শেষ করে কর্মজীবন ও পরিবারের কারণে প্রতিদিন হয়তো দেখা আর হতো না, কিন্তু একই পেশায় থাকার কারণে দেখা-সাক্ষাৎ হতো নিয়মিতই। আমি দেশের বাইরে আসার পরও বিভিন্ন ভাবে আমাদের যোগাযোগ ছিল। ফোনে কথা হতো প্রায়ই, দেশে আসলে অন্তত: একটি বারের জন্য হলেও দেখা হতো আমাদের। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কথাবার্তা তো হতোই।

বিদেশে থাকা অবস্থাতেই তারেকের কাছ থেকে হঠাৎ একটি মেসেজ পেলাম। তারিখটা ছিল ২০২১ সালের ২৭ অক্টোবর। আমার মাথায় যেন আকাশ ভেঙ্গে পড়লো। মেসেজটা ছিল, “ দোস্তো, আমার শরীর অনেক খারাপ। বোন ম্যারো ক্যান্সার থেকে এখন ব্লাড ক্যান্সার। আমাকে অবিলম্বে  কেমোথেরাপি নিতে হবে। আগামীকাল গ্রীন লাইফ হাসপাতালে ভর্তি হবো। প্রতিটি থেরাপিতে ৬/৭ দিন করে লাগবে।সম্ভবত ৬ অথবা ৭টি থেরাপি নিতে হবে ৭ মাস ধরে।অনেক এক্সপেন্সিভ। কঠিন অবস্থায় আছি। জানিনা কি হবে।আল্লাহ ভালো জানেন। তোমাদের জন্য অনেক দোয়া আর শুভ কামনা।” তারেকের কাছ থেকে পরবর্তীতে জানতে পারলাম অবস্থার তার অবস্থার কোন উন্নতি নেই,  মাসে আড়াই লাখ টাকার ওপর  লাগে শুধু মেডিসিন, টেস্ট, ব্লাড নেয়া,ডাক্তার, ইঞ্জেকশন, হাসপাতালে থাকা বাবদ।

সম্প্রতি ঢাকা গিয়েই তারেকের সাথে দেখা করি। তাকে দেখে ভীষণ মন খারাপ হলেও তার মনোবল ও প্রবল ইচ্ছা শক্তি দেখে আমি বিস্মিত হয়েছি। এই চরম অসুস্থতার মধ্যেও  কঠোর পরিশ্রম আর অধ্যাবসায়ের ফসল  তথ্যবহুল "জনসংযোগ : ধারণা ও প্রয়োগ কৌশল" গবেষণামূলক গ্রন্থটির মুদ্রণ কাজ সম্পন্ন করেছে। গ্রন্থটির কাজ শুরু করেছিল বেশ কয়েক বছর আগে। তারেক দূরারোগ্য ক্যান্সারের মধ্যে সীমাহীন কষ্ট স্বীকার করে কীভাবে যে বিশাল গবেষণাধর্মী কাজটি সম্পন্ন করেছে, বইটি হাতে নিয়ে সেটাই ভাবছিলাম। বইটিতে জনসংযোগ, গণমাধ্যম, যোগাযোগ,  ব্র‍্যান্ডিং বিষয়সমূহ এবং অন্যান্য বিষয় বিষদভাবে তুলে ধরা হয়েছে। ৮৫৬ পৃষ্ঠার (দ্বাদশ অধ্যায়-দুই ফর্মা কালার), ক্রিম কালারের ৮০ গ্রাম অফসেট কাগজে মুদ্রিত এবং বক্স সম্বলিত বইটির মূল্য রাখা হয়েছে মাত্র ২ হাজার টাকা। বাংলা একাডেমি থেকে প্রকাশিত চলচ্চিত্র নিয়ে তার একটি গবেষণাধর্মী গ্রন্থও গবেষকদের মাঝে বিপুলভাবে সমাদৃত। জনসংযোগ পেশা ও সংশ্লিষ্ট অনেক বিষয় নিয়ে তার বেশ কয়েকটি বই প্রকাশিত হয়েছে।

অনেকেই হয়তো জানেন যে মেধাবী তারেক সফলতার সাথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে বিএ (সন্মান), এমএ পাশ করার পর বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ বিভাগের পরিচালক হিসেবে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করে। পরে  ঢাকায় বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব জার্নালিজম অ্যান্ড ইলেকট্রনিক মিডিয়া ( BIJEM, website: www.bijem.org, cell phone : 01715822778 ) নামের একটি ইন্সটিটিউট প্রতিষ্ঠা করে। তারেক এই ইন্সটিটিউটের নির্বাহী পরিচালক। এই ইন্সটিটিউটে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রায় ২০০ জন দেশে ও বিদেশে বিভিন্ন ইলেকট্রনিক, মুদ্রণ ও অনলাইন গণমাধ্যমে সাফল্যের সাথে দায়িত্ব পালন করছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির প্রথম নির্বাচিত সভাপতি এবং বাংলাদেশ জনসংযোগ সমিতির সাবেক সভাপতি  মির্জা তারেকুল কাদের বেশ ক’টি জনসংযোগ ও  চলচ্চিত্র বিষয়ক গবেষণা গ্রন্থের প্রণেতা। নিরহংকারী, শিক্ষানুরাগী মির্জা তারেক তার অমায়িক আচরণের জন্য সকলের কাছে প্রিয়।

দুর্ভাগ্যজনক হলেও বাস্তব, তারেক বর্তমানে চরম আর্থিক সংকটে ভুগছে এবং বলতে দ্বিধা নেই, এই ব্যয়বহুল চিকিৎসার ভার তার একার পক্ষে বহন করা অসম্ভব। তার জীবন রক্ষায় অবিলম্বে বোন ম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্টসহ প্রয়োজনীয় চিকিৎসার জন্য জরুরী ভিত্তিতে প্রাথমিক পর্যায়ে কমপক্ষে এক কোটি টাকার প্রয়োজন।  সবচেয়ে ভাল হতো যদি বিদেশে চিকিৎসা করানো যেতো। এ অবস্থায় সরকার, শুভানুধ্যায়ী,বন্ধু-বান্ধব ও ছাত্র-ছাত্রীদের আর্থিক সহায়তা ছাড়া তারেককে বাঁচানো দুষ্কর। মির্জা তারেকুল কাদেরের বন্ধুদের পক্ষ থেকে আমরা তার চিকিৎসার জন্য  যে যতটুকু পেরেছি সহযোগিতা করার চেষ্টা করেছি। বলতে দ্বিধা নেই সে চেষ্টা তার প্রয়োজনের তুলনায় নিতান্তই অপ্রতুল। নিদারুণ দুর্যোগ, মহামারী আমাদেরকে অতিষ্ট করে তুলেছে। কিন্তু তারমধ্যেও বন্ধু, প্রিয়জন ও স্বজনদের জীবন রক্ষায় সকলের আন্তরিক সহযোগিতার জন্য এগিয়ে আসা দরকার। তারেকের মতো একজন পরোপকারী, অমায়িক, মেধাবী জনসংযোগবিদের চিকিৎসার জন্য ধনবান ব্যক্তি ও শুভানুধ্যায়ীদের এগিয়ে আসার জন্য বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি।

যে কেউ নিচের ব্যাংক একাউন্ট অথবা বিকাশ নাম্বারে আপনার অনুদান তারেককে সরাসরি প্রদান করতে পারেন। Md. Tarequl Qader MirzaSavings Account no. 126.101.62637 Dutch-Bangla Bank Ltd. Elephant Road Branch, Dhaka.BKash No- 01715822778 (Personal)

তারেকের সাথে যেদিন আমার সর্বশেষ দেখা হয় সেদিন ছিল ১৬ ডিসেম্বর, ২০২১। বাংলাদেশের বিজয় দিবস উপলক্ষে চারপাশে নানা আনন্দ-আয়োজন, আলোক-সজ্জা। কোভিড-১৯ না কমলেও স্বাস্থ্যবিধি মানছেনা অধিকাংশই। বাসা থেকে বের হওয়ার আগে জিজ্ঞেস করলাম, দোস্তো, তোর জন্য কিছু আনবো? আমি জানতাম তারেক নিজে যেমন দামী খাবার পছন্দ করে, সবাইকে খাওয়াতেও পছন্দ করে। ঢাকার কাঁটাবনে ওর অফিসে গেলে এলাকার সবচেয়ে দামী খাবার আমার জন্য আনিয়ে রাখতো। সবার বেলাতেও তার উপাদেয় খাবারের কমতি ছিল না। তারেক বললো, আমার জন্য নোনতা বিস্কুট নিয়ে আসিস। যে দোকানে পাওয়া যায়, তার নামটাও জানালো। আমাদের বন্ধুত্বটা সবসময় এমন। শাহবাগ এলাকায় দোকানটা খুঁজে পেতে একটু দেরী হলেও বিস্কুটটা পাওয়ায় খুব ভাল লাগছিল আমার।

এলিফ্যান্ট রোডের বাসায় যখন পৌঁছলাম, তারেককে পেয়ে মনটা বিষণ্নতায় ভরে গেল। সবসময় স্মার্ট থাকা তারেক কর্কট রোগের তীব্র ছোবলে ক্লান্ত, শ্রান্ত। দেখা হলো মিলি ভাবী ও ছেলের সঙ্গে। মিলি ভাবী তাঁর জীবনসঙ্গীর সুস্থতার জন্য যে পরিচর্যা ও সেবা দিচ্ছেন তা না দেখলে বোঝা দুষ্কর। তাঁর এ ঋণ কোনোকিছুর বিনিময়ে শোধযোগ্য নয়। নানা কথার পর তারেক তার সম্প্রতি প্রকাশিত প্রকাশনার এককপি আমাকে দিল, ছবি তুলল। কত কথা কত স্মৃতি, নানা ছোটখাট বিষয় নিয়ে আলোচনা।

একসময় বিদায় নিলাম। সন্ধ্যা নেমে এসেছে। এলিফ্যান্ট রোডে এসে দেখলাম, চারদিক আলোর বন্যায় ভেসে যাচ্ছে। বিজয় দিবসের জন্য আলোক সজ্জায় ঝলমল করছে বাড়িঘর, দোকানপাট, অফিস-আদালত। অজস্র অর্থের নিদারুন অপচয়। আমার মনের ভেতর করাল কর্কট রোগে আক্রান্ত তারেকের ক্লান্ত মুখ বারবার ভেসে উঠছে।

ভাবছিলাম যদি এই বিপুল অর্থের একটি ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র অংশও যদি আলাদা করা যেতো তাহলে জনসংযোগ, গণমাধ্যম ও প্রকাশনা বিশেষজ্ঞ তারেকের আবার সুস্থজীবনে ফিরে আসা সম্ভব হতো। শিক্ষা ও গবেষণার কাজে নিজেকে আরও ব্যাপৃত করতে পারতো।

পদ্মা ও মেঘনা নামে নতুন বিভাগ করার সিদ্ধান্ত স্থগিত

লাখোকণ্ঠ অনলাইন ।।  কুমিল্লা ও ফরিদপুর অঞ্চলের জেলাগুলো নিয়ে ‘পদ্মা’ ও ‘মেঘনা’ নামে নতুন দুই বিভাগ ক.....

আবাদি জমি রক্ষায় পরিকল্পিত শিল্পায়নের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক ।।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি নিশ্চিত করতে আবাদি জমি রক্ষায় পরিকল্পিত&.....

সংকট সমাধানে যুবকরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে: প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক ।।  সংকট সমাধানে যুবকরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ.....

জাতীয় যুবদিবস ২০২২ উপলক্ষ্যে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগ

অনলাইন ডেস্ক || আগামীকাল ১ নভেম্বর (মঙ্গলবার) যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে দেশব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি ব.....

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে বিদায় ও বরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ।।  প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আমিনুল ইসলাম খানের বিদায় ও নবনিযুক্ত স.....

দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় প্রতিটি বাহিনীকে দক্ষ করে গড়ে তোলা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তাঁর সরকার দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় প্রতিটি বাহ.....

চিকিৎসার জন্য জার্মান ও যুক্তরাজ্যের উদ্দেশ্যে রাষ্ট্রপতির ঢাকা ত্যাগ

অনলাইন ডেস্ক : রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও চোখের চিকিৎসার জন্য জার্মানি ও যুক্তরাজ্যে ১৬ .....

সাকিবকে আর অ্যাম্বাসেডর হিসেবে ব্যবহার করবে না দুদক

অনলাইন ডেস্ক ।।  ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানকে আর দুদকের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে ব্যবহার করা হবে না। আ.....

পায়রা সমুদ্রবন্দরে আগামীকাল বেশ কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল পায়রা সমুদ্রবন্দরে আরও ভালো সুযোগ-সুবিধাসহ এর সুষ্ঠু কার্.....

চীন কখনো মুসলমানদের বিরুদ্ধে কাজ করে না : রাষ্ট্রদূত লি

অনলাইন ডেস্ক ।।  বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বলেছেন, এই অঞ্চলে উন্নয়ন, শান্তি ও স্থিতিশীল.....

রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে তীব্র যানজট

স্টাফ রিপোর্টার ।। ভোগান্তির আরেক নাম রাজধানীর বিমানবন্দর সড়ক। সামান্য বৃষ্টি হলেই গাজীপুরের টঙ্গী থেকে গ.....

ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং : দেশে ১৩ জনের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক ।।  ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং আজ ভোরে বরিশাল-চট্টগ্রাম উপকূল অতিক্রম করার ফলে বাংলাদেশের ছয় জেলায় অ.....