• ঢাকা
  • শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩ | ১৫ মাঘ, ১৪২৯

ভোমরায় চোরাই পথে ল্যাগেজ পাচারে বেপোরোয়া জিয়াউল-মোতালেব

ভোমরায় চোরাই পথে ল্যাগেজ পাচারে বেপোরোয়া জিয়াউল-মোতালেব

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দরে ভারত-বাংলাদেশ গমনাগমনকারী পাসপোর্টধারী যাত্রী ও ল্যাগেজ ব্যবসায়ীদের বৈধ পথে নিয়ে আশা অবৈধ মালামালের কাস্টমস শুল্ক স্টেশনে টাক্স না করিয়ে চোরাই পথে ল্যাগেজসহ ব্যবসায়ীদের পারাপার করিয়ে দেয় এই দুই দালাল জিয়াউল ও মোতালেব। তাদের এই অবৈধ কর্মকান্ডের জন্য প্রতিদিন সরকার হারাচ্ছে মোটা অংকের রাজস্ব। যে সব ল্যাগেজ ব্যবসায়ীরা কথা না শোনে তারা প্রতিনিয়ত চাঁদাবাজি ও হয়রানির শিকার হয় জিয়া ও মোতালেব দ্বারা।

সাতক্ষীরা ভোমরা বন্দর এলাকার সকল শ্রেনী পেশার মানুষের মাধ্যমে জানা যায়, চিহ্নিত ল্যাগেজের দালাল জিয়াউল  ইসলাম ও মোতালেব। এই জিয়াউল ইসলাম ভোমরা পদ্ম শাখরা গ্রামের মৃত্যু সামাদ গাজীর ছেলে । বর্তমান তার বসত ভোমরা ইউনিয়নে হলেও তাদের আদি বাসস্থান ভারতে। তারা মুলত এ দেশে রিফিউজি । মোতালেব  নির্দিষ্ট কোন গ্রামের নাম ভোমরা এলাকার কেউ না জানে তবে কেউ কেউ বলেন মোতালেব যখন যেখানে বিয়ে করে তখন সেখানে থাকে। তারা আরো বলেন, আমাদের জানা মতে সে এই পর্যন্ত তিন টা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছে।

জিয়ার প্রধান হাতিয়ার এই আবু মোতালেব। সে জিয়ার ডান হাত। ল্যাগেজ দাদালীতে তার আছে পিএইচডি করা। আছে বিভিন্ন প্রশাসনিক লোকের সাথে তার সু -সম্পর্ক,  যে কারণে সবাইকে ম্যানেজ করে ল্যাগেজ দালালীতে তার জুড়ি মেলা ভার। জিয়া  মোতালেব পাসপোর্ট যাত্রী ও ল্যাগেজ ব্যবসায়ীদের জিম্মি করে বেশিরভাগ চাঁদাবাজি করেন কাস্টমস অফিসের বাইরে। প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত কাস্টমস অফিসের  বাইরে পাসপোর্ট যাত্রী ও ল্যাগেজ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে প্রকাশ্যে চাঁদাবাজি চালিয়ে যাচ্ছে জিয়া ও মোতালেব।

ল্যাগেজ ব্যবসায়ীদের বৈধ পথে নিয়ে আশা অবৈধ  মালামাল কাস্টমস কর্তৃপক্ষের চোখ কে ফাঁকি দিয়ে ল্যাগেজ পাচার করে থাকে বিনিময়ে এই দালালরা পায় ল্যাগেজ প্রতি পাঁচ থেকে দশ হাজার টাকা। অপর দিকে সরকার হারায মোটা অংকের রাজস্ব। শুধু তাই নয়, ঢাকা, খুলনা, যশের ও বেনাপোলের কিছু বড়সড় ল্যাগেজ ব্যবসায়ীরা ভারত থেকে বাংলাদেশের ইমিগ্রেশন দিয়ে বের হলে, তাদেরকে কাস্টমস অফিসে না ঢুকিয়ে সরকারী শুল্ক ফাঁকি এবং মোটা অংকের টাকা ঘুষ নিয়ে ইমিগ্রেশনের বাইরে থেকেই প্রাইভেটকার বা মাইক্রোতে করে তাদেরকে গন্তব্যে চলে যেতে সহযোগীতা করেন  জিয়া ও মোতালেব ।

এ জন্য অবশ্য এই এলাকায় ডিউটিরত কিছু অসাধু প্রশাসনিক কর্মকর্তাকে সব কিছু দেখেও না দেখার ভান করে থাকতে হয়। বিনিময়ে সময় মত এই টাকার একটা অংশ তাদের পকেটে চলে যায়। সরেজমিনে স্থলবন্দর এলাকায় দেখা গেছে এমন চিত্র। মাঝে মাঝে বিভিন্ন প্রশাসনিক দপ্তরের সোর্স পরিচয় দিয়ে পুলিশ বিজিবির কাছে পাসপোর্ট যাত্রী ও ল্যাগেজ ব্যবসায়ীদের ধরিয়ে দেয়ার ভয় দেখাতে মাদকসেবী জিয়া ও মোতালেব  ব্যবসায়ীদের কাছে দাবী করেন মোটা অংকের চাঁদা।

যারা চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানায় তাদেরকে ওই বাহিনীর ছদ্মবেশী ভাড়া মোটরসাইকেল দিয়ে গ্যারেজ থেকে বের করে কিছু দুর যেতে না যেতেই ফের বিজিবি সদস্যদের দিয়ে ধরিয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে আটকে ফেলা পাসপোর্ট যাত্রী ও ল্যাগেজ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে মালামাল ছিনিয়ে নেয়ার পাশাপাশি হাজার হাজার টাকা চাঁদাবাজি করেন। কখনও কখনও ব্যর্থ হয়ে এসব পাসপোর্ট যাত্রী ও ল্যাগেজ ব্যবসায়ীদের ধরিয়ে দেন বিজিবি’র হাতে। দিনের পর দিন ভোমরা স্থল বন্দরের কাস্টমস অফিসের বাইরে প্রকাশ্যে জিয়া মোতালেব এসব অপকর্ম যেন চোখে পড়েনা সীমান্তরক্ষী ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ বন্দর প্রশাসনের।

ভোমরা স্থলবন্দরে হয়রানী, চাঁদাবাজির শিকার একাধিক ভুক্তভোগী ও স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, জিয়া ও মোতালেব এলাকার চিহ্নিত চাঁদাবাজ। পাসপোর্ট যাত্রী ও ল্যাগেজ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকেই  নেওয়া টাকায় তাদের সংসার চলে । তাদের চাঁদাবাজিকৃত টাকার একটি অংশ চলে যায় বন্দরের অসাধূ কিছু অফিসার, সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সদস্যদের পকেটে। ফলে এসব অসাধূ আমলাদের ছত্রছায়ায় দিনদিন চিহ্নিত এই  দালাল ও চাঁদাবাজ অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে।

প্রতিবেশী দেশ থেকে আসা মানুষের কাছে বাংলাদেশের সুনাম অক্ষুন্ন রাখতে এবং পাসপোর্ট যাত্রী ও ল্যাগেজ ব্যবসায়ীদের হয়রানী রোধে অবিলম্বে জিয়া ও মোতালেবের মতো দালাল ও চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, বন্দরের শুল্ক গোয়েন্দা ও ইমিগ্রেশন পুলিশের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগীরা।

জাটকা ও মা মাছ নিধন বন্ধে আরও বেশি মোবাইল কোর্ট পরিচালনার আহ্বান মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রীর

রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জেলাপ্রশাসক সম্মেলন। ছবি-লাখোকন্ঠ

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: মৎস্য ও প্রাণ.....

অনিবন্ধিত পোর্টাল ও আইপিটিভির গুজব বড় চ্যালেঞ্জ : তথ্যমন্ত্রী

ছবি - ইন্টারনেট

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: অনিবন্ধিত অনলাইন পোর্টাল, আইপিটিভি ও ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে গুজ.....

‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ বিনির্মাণের প্রধান হাতিয়ার ডিজিটাল সংযোগ : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী আজ বৃহস্পতিবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ডিজিটাল বাংলাদেশ মেলা-২০২৩ এর উদ্বো.....

পদোন্নতি পেয়ে ৪ জন অতিরিক্ত আইজিপি

বাঁ থেকে- জামিল আহমদ, ওয়াই এম বেলালুর রহমান, মীর রেজাউল আলম ও মো. হুমায়ুন কবির

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: বাংলাদ.....

সমৃদ্ধ দেশ গড়তে কাস্টমসকে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে : রাষ্ট্রপতি

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। ছবি : পিআইডি লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সুখী-সমৃদ্ধ ও উন্নত একটি .....

রমজানে শক্ত ব্যবস্থা নেবেন, ডিসিদের উদ্দেশে বাণিজ্যমন্ত্রী

জেলা প্রশাসক সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন দুপুরে বাণিজ্যমন্ত্রী। ছবি-সংগৃহিত

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: রমজানে দ্র.....

বাঙালির পেট ঠাণ্ডা, মাথাও ঠাণ্ডা: খাদ্যমন্ত্রী

ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে খাদ্য ও কৃষি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে ডিসিদের সেশনের পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে খাদ্যম.....

রাষ্ট্রপতি নির্বাচন ১৯ ফেব্রুয়ারি

ইসি ভবনে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল। ছবি সংগ.....

এলসি খোলার সংকট শিগগিরই স্বাভাবিক হবে: গভর্নর

ছবি : ইউএনবি  

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: সামনে রমজান মাসে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ নিশ্চিত.....

সব নাগরিককে পেনশনের আওতায় আনতে বিল পাশ

ছবি-জাতীয় সংসদ

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: দেশের সব নাগরিককে পেনশনের আওতায় আনতে জাতীয় সংসদে বিল পাশ হয়েছে। মঙ্.....

'বিরোধীদল বলেছে ইভিএমে খরচ বেশি, এটা বন্ধ করে দিয়েছি'

 ছবি-সংগৃহিত

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: দেড়শ আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে ভোট নেওয়ার প্রকল্প বাদ দেওয়ার বিষ.....

ডিসিদের ২৫ দফা নির্দেশনা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শাপলা হলে জেলা প্রশাসক সম্মেলনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা.....