• ঢাকা
  • বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ | ১৮ মাঘ, ১৪২৯
মামলা করেও সুফল পাচ্ছে না ভুক্তভোগীরা

মাদারীপুরে আতঙ্কের নাম কিশোর গ্যাং !

মাদারীপুরে আতঙ্কের নাম কিশোর গ্যাং !

মাদারীপুর প্রতিনিধি ।। মাদারীপুর শহরে আতঙ্কের নাম কিশোর গ্যাং! এখন গ্রাম থেকে শহরে, আর শহর থেকে গ্রামে সবখানেই বেড়েছে কিশোর গ্যাংয়ের আধিপত্য । চুরি-ছিনতাই ও আধিপত্য ধরে রাখতে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে কিশোর দলের সদস্যরা। এমনকি নিজেদের সংঘর্ষের ভিডিও মোবাইল ফোনে ধারণ করে আপলোড করছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এসব ঘটনায় মামলা হলেও রাজনৈতিক সত্যশ্বায়ার কারণে এ অপরাধীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকায় বিচার পাচ্ছে না ভুক্তভোগীরা। ফলে বেড়ে চলছে অপরাধ। পুলিশ বলছে, এদের দমনে আইনি ব্যবস্থার পাশাপাশি সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

এছাড়াও বেশকয়েকদিন আগে রাস্তি এলাকার মনজিলা বেগম (৩০) এবং একই এলাকার রনি হাওলাদার (২৫) নামের দুই ব্যক্তিকেই এ কিশোর গ্যাংদের অত্যাচারের শিকার হতে হয়েছে। কিন্তু থানায় অভিযোগ করেও পায়নি কোন ফল। শুধু মনজিলা আর রনিই নয়, কিশোর গ্যাংয়ের অত্যাচারের বলি একই এলাকার অনেকে। রীতিমতো করছে চাঁদা দাবি, অস্বীকার করলে হতে হয় অত্যাচারের শিকার। স্থানীয়দের দাবি দ্রুত কিশোর গ্যাং সদস্যদের প্রতিহত না করতে পারলে আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাতে হবে। তাই সরকার এবং প্রশাসনের কাছে জোর দাবি এই কিশোর গ্যাংয়ের প্রতি দৃষ্টি রাখা।

অনুসন্ধান করে জানা যায়, জোরে হর্ন বাজিয়ে মোটরসাইকেল চালানোর প্রতিবাদ করায় গত ২৬ অক্টোবর মাদারীপুর শিবচরের সরকারি বরহামগঞ্জ কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী হাসিব মাহমুদ দিপুকে রাস্তা থেকে তুলে নেয় কিশোর গ্যাং সদস্যরা। পরে লোহার রড দিয়ে আহত করে উপশহর এলাকায় ফেলে রাখে তাকে। রাহুল, ফাহাদ, হামজা ও আব্দুল্লাহসহ বেশ কয়েকজনের নামে অভিযোগ দেয়ার সাতদিন পরে মামলা হয়। তবে এখনও গ্রেফতার হয়নি কোনো আসামি।

শিক্ষার্থী হাসিব মাহমুদ দিপু বলেন, আমি কলেজে লেখাপড়া করি, তাদের সাথে কোনো সময় শত্রুতা ছিল না। শুধুমাত্র মোটরসাইকেলে জোরে হর্ন বাজানোর প্রতিবাদ করায় আমার ওপর হামলা চালানো হয়েছে। ৮-৯ জন মিলে লোহার রড দিয়ে মাথায় আঘাত করেছে। আমি এ বিষয়ে থানায় অভিযোগ করার পর অভিযুক্তদের এখনো পুলিশ কোন গ্রেফতার করেনি। পুলিশ ও প্রশাসনের কাছে আমার একটা দাবি দ্রুত তাদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেওয়া হোক।তারা যেন আমার সাথে এরকম করছে আর যেন কারো সাথে না করে।আমি এ ঘটনার উপযুক্ত বিচার চাই।জানা যায়, রাজনৈতিক ছায়ায় থেকে এসব কিশোর গ্যাং সদস্যরা নিজেদের পরিচিত বাড়ানো জন্য মারামারি ও সংঘর্ষের ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিচ্ছে। এমন বেশকিছু ভিডিও ভাইরালও হয়েছে ফেসবুকে। এ ভিডিও দেখে অনেকের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এদিকে গত ৫ নভেম্বর শহর থেকে বাড়ি ফেরার পথে হামলার শিকার হন সদর উপজেলার দক্ষিণ দুধখালীর দিনমজুর শামীম আকন। তার অভিযোগ, আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে কথা কাটাকাটির জেরে পূর্ব রাস্তি এলাকার শাকিব হাওলাদার, রমিজ ও তুষারসহ গ্যাংয়ের সদস্যরা তাকে হাতুড়িপেটা করে।

দিনমজুর শামীম আকন বলেন, আমি রাজমিস্ত্রির কাজ করি আমি দিন আনি দিন খাই,আমি কোন সময় কারো সাথে তর্ক বিতর্ক জড়াই নাই। একদিন কাজ শেষে দুধখালী এলাকায় ঘুরতে গিয়ে প্রথমে কিশোর গ্যাং সদস্য শাকিব হাওলাদার, রমিজ, তুষার ও তাদের বন্ধুদের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। এর জেরে শহরের কাঠপট্টি এলাকায় আমার ওপর হামলা চালায়। সবাই মিলে আমাকে হাতুড়িপেটা করে। পরে চিৎকার চেঁচামেচির একপর্যায়ে আমাকে রাস্তার ওপর ফেলে রেখে পালিয়ে যায় ওরা।আমি তাদের বিচার চাই।

নাম প্রকাশ অনিচ্ছুক একাধিক স্কুল শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন,স্কুলে যাওয়ার পথে কিশোর গ্যাংরা খারাপ প্রস্তাব নিয়ে আমাদের রাস্তা অবরোধ করে।এবং মাঝে মাঝে তাদের ভয়ে স্কুলে যেতে আমাদের কষ্ট হয়। এ ব্যাপারে আমরা আমাদের  পরিবারকে বলতে পারছি  না। যদি তারা পরিবার বা আমাদের উপর হামলা চালায় সেই ভয়ে।

একাধিক অভিভাবকরা বলেন, কিশোর গ্যাংয়ের কারণে আমাদের ছেলে মেয়েকে স্কুলে পাঠিয় নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতে হয়। যে কখন রাস্তায় কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা কি করে ফেলে।প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি কিশোর গ্যাংয়ের প্রতি সজাগ দৃষ্টি রাখা।

মাদারীপুর সচেতন নাগরিক কমিটির সভাপতি ইয়াকুব খান শিশির বলেন, মাদারীপুর জেলাজুড়ে এক আতঙ্কের নাম কিশোর গ্যাং। চুরি-ছিনতাই ও নিজেদের আধিপত্য দেখাতে গ্যাং সদস্যরা জড়িয়ে পড়ছে সংঘর্ষে। এদের হামলা থেকে বাদ যাচ্ছে না শিক্ষক-শিক্ষার্থী কিংবা পথচারী। এ গ্যাংদের দমনে প্রশাসনের কঠোর অবস্থানের পাশাপাশি জনপ্রতিনিধি ও অভিভাবকদের সচেতন হওয়ার পরামর্শ সুধিজনদের।

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার মাসুদ আলম বলেন, এ অপরাধীদের বিরুদ্ধে চলমান রয়েছে আইনি প্রক্রিয়া। অভিভাবকদের পাশাপাশি স্কুল-কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিয়ে সামাজিক আন্দোলন ও কাউন্সিলের মাধ্যমে কিশোর গ্যাংয়ের দৌরাত্ম্য কমিয়ে আনা হবে।

বায়ুদূষণ রোধে বিশেষ অভিযানের নির্দেশ দিলেন পরিবেশমন্ত্রী

আজ মঙ্গলবার পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত এডিপি সভায় পরিবেশমন্ত্রী ছবি লাখো.....

মুসলিম উম্মাহকে ফিলিস্তিনের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে আসেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ওআইসির সদস্যভুক্ত সাতটি দেশের হাইকমিশনা.....

কড়া নিরাপত্তা বলয়ে থাকবে বইমেলা- ডিএমপি

ছবি-সংগৃহিত

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: বইমেলা কেন্দ্র করে দুর্ঘটনা এড়াতে মেলা প্রাঙ্গণ, শাহবাগ, পলাশীসহ আশপাশ.....

সবচেয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় বাংলাদেশ ১২তম

ছবি-সংগৃহিত

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: বিশ্বের ১৮০টি দেশের মধ্যে ‘সবচেয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত’ দেশের তালিকায় ব.....

১৯১টি নিউজ পোর্টাল বন্ধে চিঠি দেওয়া হয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

ফাইল ফটো

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, জনমনে বিভ্রান্তি ছড়ায়- এমন .....

রাজশাহীতে আ.লীগের সমাবেশে বিএনপির চেয়ে ১৪ গুণ বেশি লোক হয়েছে : তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ সোমবার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন। ছবি : পিআইডি

&nb.....

ঢাকায় আর্জেন্টিনার দূতাবাস চালু ২৭ ফেব্রুয়ারি

আর্জেন্টিনার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সান্তিয়াগো ক্যাফিয়েরো ও বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। ছব.....

অনির্বাচিত কাউকে দিয়ে দেশের উন্নয়ন হয় না: প্রধানমন্ত্রী

ছবি-সংগৃহিত

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন:  প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, নির্বাচনের মাধ.....

জাটকা ও মা মাছ নিধন বন্ধে আরও বেশি মোবাইল কোর্ট পরিচালনার আহ্বান মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রীর

রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জেলাপ্রশাসক সম্মেলন। ছবি-লাখোকন্ঠ

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: মৎস্য ও প্রাণ.....

অনিবন্ধিত পোর্টাল ও আইপিটিভির গুজব বড় চ্যালেঞ্জ : তথ্যমন্ত্রী

ছবি - ইন্টারনেট

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: অনিবন্ধিত অনলাইন পোর্টাল, আইপিটিভি ও ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে গুজ.....

‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ বিনির্মাণের প্রধান হাতিয়ার ডিজিটাল সংযোগ : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী আজ বৃহস্পতিবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ডিজিটাল বাংলাদেশ মেলা-২০২৩ এর উদ্বো.....

পদোন্নতি পেয়ে ৪ জন অতিরিক্ত আইজিপি

বাঁ থেকে- জামিল আহমদ, ওয়াই এম বেলালুর রহমান, মীর রেজাউল আলম ও মো. হুমায়ুন কবির

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: বাংলাদ.....