• ঢাকা
  • রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ | ২২ মাঘ, ১৪২৯
আজ ২২বিকেল ৫.৩০ সময় ঢাকা সেনা নিবাসের সিএমএইচ মারাযান

এস আই এম নূরুন্নবী খান বীর বিক্রম আর বেঁচে নেই

এস আই এম নূরুন্নবী খান বীর বিক্রম  আর বেঁচে নেই

 

লাখোকণ্ঠ প্রতিবেদক : আজ ২২বিকেল ৫.৩০ সময় ঢাকা সেনা নিবাসের সিএমএইচ সিসিইউতে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় মারাযান । তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ।  স্বাধীনতা যুদ্ধে তাঁর সাহসিকতার জন্য বাংলাদেশ সরকার তাঁকে বীর বিক্রম খেতাব প্রদান করে।

জন্ম ও শিক্ষাজীবন

এস আই এম নূরুন্নবী খানের জন্ম লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার লক্ষ্মীধরপাড়া গ্রামে ১৯৪২ সালে জন্ম গ্রহণ করেন । তাঁর বাবার নাম হাবীবউল্লাহ খান এবং মায়ের নাম শামছুন নাহার বেগম। তাঁর দুই স্ত্রী। তাদের নাম জাকিয়া মাহমুদা ও সুলতানা নবী। তাঁদের এক ছেলে ও তিন মেয়ে।  তিনি বুয়েটের ছাত্র ছিলেন এবং ১৯৬৭ ও ১৯৬৮ সালে পরপর দুইবার বুয়েট ছাত্রলীগ শাখার সভাপতি ছিলেন। । ১৯৬৯ সালে ইউকসু (প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ) এর ভিপি নির্বাচিত হন ।’

 কর্মজীবন

পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং কোরে চাকরি করতেন এস আই এম নূরুন্নবী খান। ১৯৭১ সালে পশ্চিম পাকিস্তানের কোয়েটায় প্রশিক্ষণে ছিলেন। ২৭ মার্চ সেখান থেকে কৌশলে দ্বিতীয় কমান্ডো ব্যাটালিয়নের সঙ্গে ঢাকায় এসে পালিয়ে মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেন। ভারতে যাওয়ার পর তিনি কিছুদিন এমএজি ওসমানীর এডিসি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরে তাঁকে নিয়মিত মুক্তিবাহিনীর তৃতীয় ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের ডেলটা কোম্পানির অধিনায়ক হিসেবে নিযুক্ত করা হয়। অসংখ্য যুদ্ধে তিনি প্রত্যক্ষভাবে অংশ নেন। এর মধ্যে বাহাদুরাবাদ, ছাতক, গোয়াইনঘাট, রাধানগর, ছোটখেল, সালুটিকর যুদ্ধ উল্লেখযোগ্য। অসাধারণ রণনৈপুণ্য ও সাহস প্রদর্শনের জন্য তখন তাঁর নাম চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। কয়েকটি যুদ্ধে তিনি দলনায়ক হিসেবে অসম সাহস প্রদর্শন করেন।

মুক্তিযুদ্ধে ভূমিকা

১৯৭১ সালের ১২ ডিসেম্বর সিলেট জেলার অন্তর্গত সালুটিকরের অবস্থান ছিলো শহর থেকে সাত কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে। নবাটিলার দক্ষিণ দিক ঘেঁষে বিমানঘাঁটি এলাকা। সালুটিকরে ছিল পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর শক্ত এক প্রতিরক্ষা অবস্থান। মুক্তিযুদ্ধের চূড়ান্ত পর্যায়ে মুক্তিবাহিনী সেখানে আক্রমণ করে। কয়েক দিন ধরে যুদ্ধ হয়। ১২ ডিসেম্বরের যুদ্ধই ছিল চূড়ান্ত যুদ্ধ। সেদিন সকাল থেকে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী মুক্তিবাহিনীর অবস্থানে আর্টিলারি আক্রমণ শুরু করে। মুক্তিবাহিনীও তার পাল্টা জবাব দেয়। পরে পাকিস্তানি সেনারা মার্চ করে মুক্তিবাহিনীর অবস্থানের একদম কাছে আসতে থাকে তখন নূরুন্নবী খান কৌশলগত কারণে সহযোদ্ধাদের গোলাগুলি বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন। পাকিস্তানি সেনারা প্রথমে পাশের দাড়িকান্দি দখল করে নদীর তীরবর্তী চৌধুরীকান্দি ও কচুয়ারপাড় এলাকায় আসতে থাকে। কাছেই ছিল ফরেস্ট ডাকবাংলো। সেখানে একদল মুক্তিযোদ্ধা নিয়ে প্রতিরক্ষা অবস্থানে ছিলেন নূরুন্নবী খান। তাঁর সঙ্গে ছিলেন মিত্রবাহিনীর কর্নেল রাজ সিং। পাকিস্তানি সেনারা তাঁদের অবস্থানের ২০০ গজের মধ্যে আসামাত্র রাজ সিং বারবার নূরুন্নবী খানকে অনুরোধ করেন গুলি শুরু করতে। দুঃসাহসী নূরুন্নবী খান তা না করে বলেন, শত্রুদের আত্মসমর্পণে বাধ্য করা হবে। পাকিস্তানি সেনারা এক সারিতে এগিয়ে আসতে থাকে। তারা ভেবেছিল, মুক্তিযোদ্ধারা পালিয়ে গেছে। ১০ গজের মধ্যে আসামাত্র নূরুন্নবী খান বলে ওঠেন, ‘হ্যান্ডস আপ।’ এতে পাকিস্তানি সেনারা হতভম্ব হয়ে পড়ে। সামনে থাকা কয়েকজন সঙ্গে সঙ্গে আত্মসমর্পণ করে। পেছনে থাকা পাকিস্তানি সেনারা এদিক-সেদিক দৌড়ে যায়। তারপর শুরু হয় ভয়াবহ যুদ্ধ। মুক্তিযোদ্ধাদের আক্রমণে নিহত হয় বহু পাকিস্তানি সেনা। বন্দী হয় বেশ কয়েকজন। সন্ধ্যার মধ্যেই গোটা সালুটিকর এলাকা মুক্তিবাহিনীর দখলে চলে আসে। ]

পুরস্কার ও সম্মাননা

স্বাধীনতা যুদ্ধে তাঁর সাহসিকতার জন্য বাংলাদেশ সরকার তাঁকে বীর বিক্রম খেতাব প্রদান করেন।

 

তাঁর ছেলে মেয়েরা আমেরিকায় অবস্থান করছেন বলে যানা যায় । তারা দেশে আসার পর শনিবারের দিকে তাঁকে রাস্ট্রিয় ভাবে দাপন করা হবে বলে যানা যায় ।

ঢাকায় মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফুদ্দিন নাসুসন ইসমাইল আজ শনিবার ঢাকায় এসে পৌঁছালে তাঁকে অভ্যর্থনা দেওয়া .....

বিএনপি শীতের পাখি, তাদের দেখা যায় শুধু ভোটের সময়: তথ্যমন্ত্রী

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ - ফাইল ছবি

কক্সবাজার প্রতিনিধি:বিএনপির রাজনীতির সমালোচনা করে .....

জানুয়ারিতে সড়ক, রেল ও নৌপথে দুর্ঘটনায় নিহত ৬৪২

জানুয়ারিতে সারাদেশে ৫৯৩টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৫৮৫ জন নিহত হয়েছে - প্রতীকী ছবি

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: সারাদেশে গ.....

জাতিসংঘ শান্তি বিনির্মাণ কমিশনের সহ-সভাপতি বাংলাদেশ

ছবি : সংগৃহিত

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন:  জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ .....

পাঠ্যপুস্তক নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ালে ব্যবস্থা নেওয়া হবে : তথ্যমন্ত্রী

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ আজ শুক্রবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যান প্রাঙ্গণে বইয়ের মোড়ক উন্মোচন শেষে .....

সেপ্টেম্বরে ভারত সফরে যেতে পারেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। পিআইডির ফাইল ছবি লাকোকন্ঠ প্রতিবেদন: ভার.....

আব্দুস সাত্তারকে ধরে রাখতে না পারা বিএনপির ব্যর্থতা: তথ্যমন্ত্রী

সচিবালয়ে তথ্য অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে ‘উন্নয়নের নব দিগন্ত’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্.....

জলাভূমি রক্ষা ও পুনরুদ্ধারে সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞ হয়ে কাজ করছে-পরিবেশমন্ত্রী

ফটো-লাখোকন্ঠ

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন বলেছেন, মাননীয় প্র.....

সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটে ‘বাংলা সংস্করণ’ উদ্বোধন

হাইকোর্টের ফাইল ছবি

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন:  সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটের ‘বাংলা সংস্করণ’উদ্বোধন করা .....

পাতাল রেলের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বৃহস্পতিবার পাতাল রেলের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করেন। ছবি: সংগৃহিত

লাখোকন্ঠ প.....

দুর্নীতি সূচকে দেশকে এক ধাপ নামানো উদ্দেশ্যপ্রণোদিত : তথ্যমন্ত্রী

ছবি -সংগৃহিত

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, .....

‘কেউ কেউ দু-চার বছরের জন্য অনির্বাচিত সরকার ক্ষমতায় আনতে চায়’

ছবি : ফোকাস বাংলা  

লাখোকন্ঠ প্রতিবেদন: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘দেশের কেউ কেউ দু-চার বছরের জন্.....