• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫ আশ্বিন, ১৪২৮
একটি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের একটি পরিবারকে নিয়ে আমাদের সমাজের কতিপয় স্বার্থান্বেষী মহলের জঘন্য কারসাজি,ও তার নেপথ্যের লোভা

সমাজ বাস্তবতার কাহিনী ‘দীনেশের কালোরাত’ তাজ ইসলাম

সমাজ বাস্তবতার কাহিনী ‘দীনেশের কালোরাত’ তাজ ইসলাম

  অনলাইন ডেস্ক:   “স্কুল ছুটি হতে এখনও অনেক বাকি। হঠাৎ করেই আলীম স্যার ক্লাসরুমের দরজায় এসে দাঁড়ালেন। তিনি এ স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক। ক্লাস নিচ্ছিলেন আরিফ স্যার। তিনি এ স্কুলের নবাগত জুনিয়র শিক্ষক। আলীম স্যারকে ক্লাসরুমের দরজায় দেখেই আরিফ স্যার একটু বিব্রত হয়ে পড়লেন।- আসসালামু আলাইকুম স্যার, আসুন স্যার আসুন, কোনো সমস্যা স্যার? ...........আলীম স্যার খুব নিচু গলায় আরিফ স্যারের সালামের জবাব দিয়ে বললেন - না, কোনো সমস্যা না। আপনি ক্লাস নিতে থাকেন। শুধু কে একটু ছুটি দিতে হবে।”এভাবেই শুরু করেছেন কবি, আবৃত্তিশিল্পী ও ঔপন্যাসিক আহমদ বাসির তার কিশোর উপন্যাস "দীনেশের কালোরাত। আহমদ বাসির ঝরঝরে শব্দের বুননে এগিয়ে নিচ্ছেন উপন্যাসের কাহিনীকে।এই উপন্যাসের কেন্দ্রীয় চরিত্র। তাকে ঘিরেই কাহিনীর বিস্তার। কে স্কুল থেকে বাড়ীতে পাঠান হয় স্কুলের পিয়ন খলিলুর রহমানকে দিয়ে। রিকসা কে নিয়ে বাড়ির দিকে চলছে। বাড়িতে পৌঁছার আগেই হৃদয় চৌচির হওয়া সংবাদটি কর্ণে আসে। ঔপন্যাসিকের বয়ানে আমরা শুনে নেই “রিকশাটি মানুষের জটলা হয়ে যাওয়ার সময় জটলার ভেতরে থেকে একজনের কণ্ঠ যেন তীরের ফলার মতো দীনেশের হৃদপিন্ডটাকে এফোঁড় ওফোঁড় করে দিয়ে যায়। লোকটা বলছিল-আহারে, অনিমেষের মতো মানুষটাকে এভাবে মেরে ফেললো!” অনিমেষ দীনেশের বাবা। দীনেশের আর বুঝতে বাকি রইলো না কেন স্যার থাকে স্কুল থেকে ছুটি দিয়েছেন। আমরা তখন শিল্পীর অংকিত শব্দচিত্রে দীনেশের মানসিক অবস্থা অনুভব করতে পারি “তার কচি বুক এত বড় ঢেউয়ের আঘাত সহ্য করতে পারছে না। বুকটা তার ভেঙে ভেঙে চুরমার হয়ে যাচ্ছে যেন।” কিন্তু কেন অনিমেষ খুন হলেন? জনমনে এই জিজ্ঞাসা ঘুরপাক খাচ্ছে। কৌতুহলি হয়ে ওঠছেন লেখক। সত্যটা বের করে আনতে লেখক তার কৌতুহল চিত্রায়ন করেছেন আবির আর আসলকে দিয়ে। তারা দুইজন দীনেশের বন্ধু। তার শরণাপন্ন হলেন মসজিদের ইমাম মাওলানা হাসান সাহেবের। অনিমেষ আর ইমাম সাহেব পরস্পর পরস্পরে ঘনিষ্টতা নিবিড়। এখানে লেখক খুব সুন্দরভাবে আমাদের দেশের একটি সুসম্পর্কের স্পষ্ট জবাব দিয়েছেন। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নিয়ে যারা প্রশ্ন উত্থাপন করেন তাদের জন্য লেখকের সৃষ্ট মাওলানা চরিত্রের জবানের বয়ান "অনিমেষ আমার সমবয়সী। আমার সঙ্গে ওর ঘনিষ্ঠতা সেই ছোটবেলা থেকে।.... ও আমাকে এতটাই সম্মান করত যে,ওর বিয়েতেও আমাকে দাওয়াত করেছিল। ওর আবদার রক্ষা করতে গিয়ে ওর বিয়ের সেই ছোট্ট অনুষ্ঠানটিতেও আমার থাকতে হয়েছিল। “হিন্দু মুসলমানের এটিই আমাদের দেশের ঐতিহ্যিক চিত্র,এটিই বাস্তব। আমাদের গ্রামাঞ্চলের চিরায়ত চিত্র এমনই। লেখক "দীনেশের কালোরাত” গ্রন্থে কাহিনী বর্ণনাচ্ছলে এমনভাবেই ফুটিয়ে তুলেছেন অনেক ধ্রুবসত্যের সরল চিত্র। এগিয়ে চলছে কাহিনী বিভিন্ন মোড় ঘুরে রহস্য উন্মোচনের দিকে।মাওলানা হাসান, আবির, আসল যখন অনিমেষ খুনের রহস্য উন্মোচনে তৎপর হয় তখনই কাহিনী মোড় নেয় অন্য দিকে। অনিমেষকে খুন করায় গ্রামের মাদক ব্যাবসায়ী স্বপন সাধু। খুনি মজিদ তা স্বীকার করলে তাকেও হত্যা করানো হয় ক্রশ ফায়ারে। মাওলানা গ্রেফতার হন অনিমেষ হত্যার মিথ্যা অভিযোগে। কাহিনীর বিভিন্ন বাঁক ঘুরে সমাপ্তির দিকে যেতে থাকে। সবশেষে কে নিয়ে আইনি সুরাহার জন্য রওয়ানা দেন ঢাকার উদ্দেশ্যে। পথিমধ্যে অপহৃত হন এড. ফজলুর রহমান, আবির, আসল আর। এখানেই উপন্যাসের সমাপ্তি। উপন্যাসের বৈশিষ্ট অনুসারে সমাপ্তিটি সন্তোষজনক নয়। সমাপ্তিতে মনে হয় যেন এটি একটি সিরিজ লেখা। যদি তা হয় তাহলে ভিন্ন কথা। নতুবা উপন্যাসের এ পর্যায়ের ইতিটানা পাঠক মনে অসন্তোষ থাকাই স্বাভাবিক।   একজন তরুণ কবি আহমদ বাসির। সাহিত্যের বিভিন্ন শাখায় তার বিচরণ।  বইমেলা ২০১৮ প্রকাশ হয়েছে তার কিশোর উপন্যাস “দীনেশের কাল রাত” আহমদ বাসির এই গ্রন্থে অত্যন্ত মুন্সিয়ানার সাথে তুলে ধরেছেন সমাজ বাস্তবতা,একটি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের একটি পরিবারকে নিয়ে আমাদের সমাজের কতিপয় স্বার্থান্বেষী মহলের জঘন্য কারসাজি,ও তার নেপথ্যের লোভাতুর খুটির দাপট। এই গ্রন্থে আহমদ বাসির সূক্ষ্মভাবে একটি আদর্শের মন্ত্র গেয়েছেন এবং তুলে ধরেছেন রাজনৈতিক চারিত্রিক অধ:পতনের চিত্র। তবে তার উপন্যাসের কাহিনী বর্ণনা বা চরিত্রচিত্রায়ন রাজনৈতিক দুষে দুষ্ট হয়নি। এটিই লেখকের সার্থকতা।বইটি কিশোর উপন্যাস হলেও সব মহলের পড়ার মতো একটি বই। সহজ, সরল, সাবলীল গদ্যের সমাজের বাস্তবতার নিরিখে রচিত একটি চমৎকার বই। বইটির প্রকাশক মো. ইকবাল হোসাইন। প্রচ্ছদ এঁকেছেন সাইফ আলী। উন্নত কাগজ, ঝকঝকে ছাপা ৪৮ পৃষ্টার বইটির মূল্য ১২০ টাকা।

লেবাননে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা .....

আইএসপিআর ।। লেবাননের বৈরুতে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে নিয়োজিত বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ১১০ জন সদস্য শান্তিরক্ষ.....

গুণগত ও স্ট্যান্ডার্ড সাইজের .....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন ।। দেশের সকল রাস্তা ও ভবন নির্মাণে গুণগত মানসম্পন্ন ও স্ট্যান্ডার্ড সাইজের ইট তৈরি এবং সরবর.....

বাংলাদেশ ওজোনস্তর রক্ষায় সফল.....

স্টাফ রিপোর্টার ।। পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন বলেছেন, মানবকূলকে সূর্যের ক্ষতিকর .....

ঢাকায় পৌঁছেছে সিনোফার্মের আর.....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন ।। দেশে পৌঁছেছে চীন থেকে কেনা সিনোফার্মের আরও ৫০ লাখ টিকার চালান। শুক্রবার চীনের তিয়ানজিয়া.....

প্রধানমন্ত্রীর বিদেশ সফরসূচি.....

নিজস্ব প্রতিবেদক: জাতিসংঘের ৭৬তম সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে নিউ ইয়র্কের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেছেন প্রধা.....

১১ সাংবাদিক নেতার ব্যাংক হিসা.....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন ।। দেশের ১১ সাংবাদিক নেতার ব্যাংক হিসাব তলবের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে সম্পাদক পরিষদ। আজ ব.....

ইনস্টিটিউট হচ্ছে শিশু হাসপাত.....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন ।। দক্ষ ব্যবস্থাপনা, শিক্ষার মান ও উন্নত সেবা নিশ্চিত করার পাশাপাশি গবেষণা ও উচ্চশিক্ষার সু.....

আদালতের আদেশের কপি পাওয়ার পর ক.....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন ।। তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, অনলাইন সংবাদপোর্টাল নিবন্ধন একটি চলমান প.....

১২ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদেরও টি.....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন ।। করোনা মোকাবিলায় ১২ বছর ও তার বেশি বয়সী শিক্ষার্থীদের টিকার আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন প.....

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি-সা.....

লাখোকণ্ঠ প্রতিবেদক ।। জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও সম্পাদকসহ সাংবাদিকদের শীর্ষ চার সংগঠনের ১১ নেতার ব্যাং.....

বিশ্ব পরিস্থিতির সাথে তাল মিল.....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন ।। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমরা মনে করি বিশ্ব এগিয়ে যাচ্ছে, আমাদের এর সঙ্গে তাল মি.....

‘ভারত সরকার কথা দিয়েছে সীমান্.....

লাখোকণ্ঠ অনলাইন ।। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পবিহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সীমান্তে হ.....