Ad: ০১৭১১৯৫২৫২২
১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ || ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন আদালত
  3. আইন শৃংখলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. কৃষি অর্থনীতি
  6. খেলাধূলা
  7. চাকরি-বাকরি
  8. জাতীয়
  9. জীবনের গল্প
  10. ধর্ম
  11. নির্বাচনী হাওয়া
  12. ফিচার
  13. বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
  14. বিনোদন
  15. রাজধানী
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নদী বাঁচাতে হলে পরিবেশ-প্রতিবেশ রক্ষা করতে হবে-বন পরিবেশ ও জলবায়ু উপমন্ত্রী

নিউজ রুম
মার্চ ৫, ২০২৩ ১১:৫২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

৩ ও ৪ মার্চ শুক্র ও শনিবার পর্যটনকেন্দ্র কুয়াকাটার একটি আবাসিক হোটেলে প্রথম উপকূলীয় নদী ক্যাম্প ও নাগরিক সংলাপে ২দিন ব্যাপী  অংশ নিয়ে বিভিন্ন সেসনে আলোচকেরা এসব কথা বলেন। রিভার অ্যান্ড সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট বাংলাদেশ (আরএসডিবি) নামের একটি বেসরকারি সংস্থা এর আয়োজন করে।

নদ-নদী রক্ষার শপথ নেওয়ার মধ্য দিয়ে ৪ মার্চ শনিবার সন্ধ্যায় দুই দিনের এ আনুষ্ঠানিকতা শেষ হয়। এতে দেশের উপকূলীয় ১৯ জেলাসহ সারা দেশে নদ-নদী নিয়ে কাজ করা কর্মী, পরিবেশ ও জলবায়ু গবেষক, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, সরকারি-বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধি, জনপ্রতিনিধি, উন্নয়নকর্মী এবং গণমাধ্যমকর্মীরা অংশ নেন। অনুষ্ঠানে সহায়তা করেছে পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা), ওয়াটার কিপার্স বাংলাদেশ, বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড, ইফাদ গ্রুপ, ছায়াতল বাংলাদেশ, জাতীয় মানবাধিকার সোসাইটি, সুইজারল্যান্ড সহায়তা ফাউন্ডেশন ও সুইডেন ভেরিস ও দৈনিক লাখোকণ্ঠ ।

প্রথম দিনের অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার  তোফায়েল আহমদ । উদ্বোধন  শেষে নদী ও সাগরের মোহনা টেংরাগীরি নামক স্থানে বিশ্ব জলবায়ু ধর্মঘট পালন করা হয়।

২য় দিনের অনুষ্ঠানের শুরুতে গায়ক গোলাম মোস্তফার পরিবেশ-প্রতিবেশ নিয়ে লেখা গান ‘বাঁচাও উপকূল, বাঁচাও প্রকৃতি, ভেঙে যাওয়া স্বপ্ন জাগাও সারথি’ গানটি শোনানো হয়। প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন বন পরিবেশ ও জলাবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এমপি। তিনি বলেন, ‘উপকূলের নদী বাঁচাতে আমাদের সবাইকে কাজ করতে হবে। নদী বাঁচলে, বাঁচবে সোনার বাংলাদেশ। এ জন্য সরকার সুদূরপ্রসারী চিন্তা ও নীতিমালা হাতে নিয়েছে। সরকারের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে উপকূলের সম্পদ রক্ষায় সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। তাহলে রক্ষা পাবে আমাদের সম্পদশালী নদী।’ অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন, রিভার অ্যান্ড সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট বাংলাদেশ (আরএসডিবি) সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল গাজী।

শনিবারে উদ্বোধনী অধিবেশনে ‘উপকূলীয় পর্যটন উন্নয়ন পরিকল্পনা’ বিষয়ে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন হিস্টোরি অ্যান্ড হেরিটেজ ট্যুরিজমের চেয়ারম্যান আকরামুল হাফিজ চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘সমুদ্র এবং নদী ঘিরে প্রতিটি দেশের উন্নয়ন পরিকল্পনা হয়। দুঃখজনক হলো, আমাদের দেশের নদী এবং সমুদ্রকে আমরা ব্যবহার করতে পারছি না। এতে আমরা উন্নয়নেও পিছিয়ে যাচ্ছি। নদী বাঁচাতে হলে পরিবেশ-প্রতিবেশ রক্ষা করতে হবে। এ জন্য সবাইকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হতে হবে।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সামশাদ নওরিন বলেন, উপকূলের বিভিন্ন এলাকা বিপন্ন হতে চলেছে। উপকূল রক্ষায় ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা গ্রহণ করা প্রয়োজন। শুধু সরকারের দিকে চেয়ে থাকলে হবে না, স্থানীয় পর্যায়েও নদী রক্ষায় ব্যবস্থা নিতে হবে।

এ অধিবেশনে অন্যদের মধ্যে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান মাহবুব পারভেজ, আরএসডিবির বরিশাল বিভাগীয় সমন্বয়ক মো. আরিফুর রহমান, ট্যুর অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব কুয়াকাটার (টোয়াক) প্রেসিডেন্ট রুমান ইমতিয়াজ, বাংলাদেশ পর্যটন সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আনজুমান আরা বক্তব্য দেন।

এর আগে সকালে উদ্বোধনী অধিবেশনে ‘উপকূলীয় পরিবেশের সমস্যা ও উত্তরণের উপায়’ বিষয়ের ওপর আলোচনায় অংশ নেন কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. জাহাঙ্গীর হোসেন। তিনি বলেন, ‘সরকার ২০১৩ সালে নদী রক্ষা কমিশন গঠন করেছে। এটা করা হয়েছে দেশের নদ-নদী রক্ষার জন্য। আমাদের দেশের নদীর সংখ্যা সাত শতাধিক। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ডেলটা প্ল্যান তৈরি করেছেন। এর ছয়টি লক্ষ্য রয়েছে। নদীর বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, ভাঙন প্রতিরোধসহ কিছু পরিকল্পনা এর মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হবে। বক্তব্য রাখেন ’ষ্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক কামরুজ্জামান মজুমদার

এ অধিবেশনে স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান আহমদ কামরুজ্জামান মজুমদার, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক মো. মহিউদ্দিন, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) অবসরপ্রাপ্ত তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী তোফায়েল আহমদ, বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান ফাতিমা পারভীন, বাংলাদেশ পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের (বাপা) কলাপাড়া আঞ্চলিক শাখার সদস্যসচিব মেজবাহ উদ্দিন এবং আরএসডিবির খুলনা বিভাগীয় সভাপতি কমলা সরকার বক্তব্য দেন।

বিকেলে ‘পরিবেশ রক্ষায় যুবদের চিন্তা–ভাবনা’ শীর্ষক আরেকটি অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব ইকোনমিকসের সহকারী অধ্যাপক সাদিয়া ইসলাম, প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দৈনিক লাখোকণ্ঠ’র প্রকাশক ও সম্পাদক ফরিদ আহম্মদ বাঙ্গালী, প্যারামাউন্ট গ্রুপের পরিচালক পরিবেশে কর্মী হাবিবুর রহমান, ৭১ টিভির জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক মো. হাবিবুর রহমান, ছায়াতল বাংলাদেশের চেয়ারম্যান সোহেল রানা, আরএসডিবি এর চট্টগ্রাম বিভাগীয় সভাপতি  কাজী তানিয়া পারভিন মুন্নী জলবায়ু বিষয়ক মতামত ব্যক্ত করেন।

সমাপনী অধিবেশনে অংশগ্রহণ করেন নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো: আব্দুস সালাম। তিনি বলেন-জলবায়ুর প্রভাব থেকে আমাদেরকে রক্ষা পেতে হলে সকল সংস্থাকে সমণ্বিতভাবে কাজ করতে হবে।এই অধিবেশনে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মাইলস্টন স্কুল এন্ড কলেজ, গাজীপুর শাখার শিক্ষার্থী আমিরাহ্ ফাতেমা।

সবশেষে অধিবেশনের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা তোফায়েল আহম্মেদ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।



এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।