Ad: ০১৭১১৯৫২৫২২
১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ || ১লা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন আদালত
  3. আইন শৃংখলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. কৃষি অর্থনীতি
  6. খেলাধূলা
  7. চাকরি-বাকরি
  8. জাতীয়
  9. জীবনের গল্প
  10. ধর্ম
  11. নির্বাচনী হাওয়া
  12. ফিচার
  13. বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
  14. বিনোদন
  15. রাজধানী
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পায়রা বন্দরের রাবনাবাদ চ্যানেলের ক্যাপিটাল ড্রেজিং সম্পন্ন :আনুষ্ঠানিক হস্তান্তর

নিউজ রুম
মার্চ ২৬, ২০২৩ ৫:৩৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

লাখোকণ্ঠ সংবাদদাতা,কলাপাড়া, পটুয়াখালী :২৬ মার্চ পায়রা বন্দরের নিজস্ব আয় দিয়ে চলার সক্ষমতা অর্জন করতে যাচ্ছে। এটি নির্মাণের ব্যয় অচিরেই উঠে আসবে। এখনই দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারী বন্দরের সঙ্গে যোগাযোগ করতে শুরু করেছে। তাঁরা শিল্পায়নের জন্য আগ্রহ প্রকাশ করছেন। পায়রা বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ সোহায়েল রবিবার বেলা সাড়ে ১১ টায় বন্দর সভাকক্ষে আনুষ্ঠানিক প্রেস ব্রিফিং এ আরও বলেন, দেশের তিনটি বন্দরের মধ্যে এখন সবচেয়ে গভীরতম রাবনাবাদ চ্যানেল। মহান স্বাধীনতা দিবসে এটি আমাদের আরেকটি অর্জন। আগামী দুই এক দিনের মধ্যে ৩৬ হাজার থেকে ৪০ হাজার মেট্রিকটন পন্যবাহী জাহাজ সরাসরি রাবনাবাদ চ্যানেল দিয়ে বন্দরে ভিড়বে। এমনকি আগামী এপ্রিল মাসের প্রথম সপ্তাহে ৬০ হাজার মেট্রিক টন পন্যবাহী জাহাজ বন্দরের প্রথম টার্মিনালে ভিড়বে। ওইদিন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ টার্মিনালের শুভ উদ্বোধন করবেন বলে বন্দর চেয়ারম্যান আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
বন্দর চেয়ারম্যান আরও বলেন, পায়রা বন্দরের রাবনাবাদ চ্যানেলের ক্যাপিটাল ও মেইনটেনেন্স ড্রেজিং প্রকল্পটি বাংলাদেশের ইতিহাসে এককভাবে সবচেয়ে বড় প্রকল্প, যা পায়রা বন্দর সফলভাবে সম্পন্ন করতে সক্ষম হয়েছে। এর মাধ্যমে পায়রা বন্দরের রাবনাবাদ চ্যানেলের গভীরতা ১০.৫ মিটারে উন্নীত হয়েছে। ফলে পায়রা বন্দর বর্তমানে দেশের সবচেয়ে গভীরতম বন্দরে রূপান্তরিত হয়েছে। এখন ২২৫ মিটার দীর্ঘ এবং ৩২ মিটার প্রস্থ প্যানাম্যাক্স আকৃতির বড় জাহাজ পণ্য নিয়ে সরাসরি পায়রা বন্দরে ভিড়তে পারবে। বন্দরের এই সক্ষমতার মাধ্যমে বাংলাদেশের বৈদেশিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে ব্যাপক প্রসার ঘটবে। দেশের অর্থনীতিতে নতুন দিগন্তের সূচনা হবে। নৌপরিবহন মন্ত্রনালয়ের অধীনে এবং পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষ যৌথভাবে দেশের সর্ববৃহৎ ড্রেজিং স্কিম ‘ রাবনাবাদ চ্যানেলের ক্যাপিটাল ড্রেজিং’ সফলভাবে সম্পন্ন করে। বেলজিয়াম ভিত্তিক ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জান ডে লুন আলোচ্য ড্রেজিং কাজটি সম্পন্ন করে।
স্কিম পরিচালক কমডোর রাজীব ত্রিপুরা বলেন, ‘ দীর্ঘ ৭৫ কিলোমিটার চ্যানেল এর ক্যাপিটাল ড্রেজিং বাস্তবায়নের আগে দীর্ঘ কয়েক বছর স্টাডি ও বিভিন্ন ধরনের সমীক্ষা চালানো হয়েছে। উক্ত স্টাডি থেকে প্রাপ্ত তথ্য-উপাত্ত নেদারল্যান্ডের আন্তর্জাতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান রয়েল হাস্কুনিং এবং সিডিআর কর্তৃক বিশ্লেষণ করা হয়। পরবর্তীতে যুক্তরাজ্য ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান এইচ আর ওয়ালিংফোর্ড এর সিম্যুলেটরে রিয়েল টাইম সিম্যুলেশন এবং আন্ডারসাইড কীল ক্লীয়ারেন্স পরীক্ষা চুড়ান্তভাবে আন্তর্জাতিক মানের একটি চ্যানেল ডিজাইন করে ক্যাপিটাল ড্রেজিং করা হয়।’
জানডেলুন এর প্রকল্প পরিচালক জ্যান ময়েন্স বলেন,‘ বাংলাদেশের তৃতীয় সমুদ্র বন্দর পায়রার ক্যাপিটাল ও মেইনটেনেন্স ড্রেজিং এর কাজে সরাসরি যুক্ত হতে পারা জান ডে লুন এর জন্য অত্যন্ত গর্বের বিষয়।’ স্থানীয় সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ মহিববুর রহমান বলেন,‘ ক্যাপিটাল ড্রেজিং শেষ হবার ফলে পায়রা বন্দর বিশে^র একটি শ্রেষ্ঠ বন্দরে পরিণত হয়েছে। এই বন্দরের মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। মানুষের জীবন মানের উন্নয়ন ঘটবে।
বন্দর চেয়ারম্যান আরও বলেন, ‘ পায়রা বন্দর নির্মাণ প্রধানমন্ত্রীর একটি যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত এবং এর মাধ্যমে উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ তথা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে পায়রা বন্দর বিশেষ ভূমিকা রাখবে। তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চিন্তাভাবনা থেকে ২০১৩ সালের ১৫ নভেম্বর এই বন্দরের যাত্রা শুরু হয়। ২০১৯ সালে শুরু হয় অপারেশনাল কার্যক্রম। এরপরে পায়রা বন্দরের অগ্রযাত্রা আর থামেনি।



এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।