Ad: ০১৭১১৯৫২৫২২
১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ || ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন আদালত
  3. আইন শৃংখলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. কৃষি অর্থনীতি
  6. খেলাধূলা
  7. চাকরি-বাকরি
  8. জাতীয়
  9. জীবনের গল্প
  10. ধর্ম
  11. নির্বাচনী হাওয়া
  12. ফিচার
  13. বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
  14. বিনোদন
  15. রাজধানী
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পেট ফাঁপা হতে পারে যেসব খাবারের কারণে

বার্তা কক্ষ
আগস্ট ২৪, ২০২৩ ১১:২২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

লাখোকন্ঠ লাইফস্টাইল: ব্যস্ত জীবনযাপনে খাবারের ক্ষেত্রেই সম্ভবত সবচেয়ে বেশি অনিয়ম করা হয়। যে কারণে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় ভুগছেন না, এমন মানুষ কমই পাওয়া যাবে। অ্যাসিডিটি, ফোলাভাব, কোষ্ঠকাঠিন্য, গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা এবং পেট ফাঁপা এমন সাধারণ অসুস্থতা যার সঙ্গে আমাদের প্রায় আমরা প্রতিদিনই লড়াই করতে হয়। খাবারের সঙ্গে অত্যধিক বাতাস গিলে ফেলার কারণে বা হজম প্রক্রিয়ার সময় আমাদের শরীর দ্বারা উৎপন্ন হতে পারে গ্যাসের সমস্যা। কিছু খাবার তুলনামূলক বেশি গ্যাস সৃষ্টি করে যা বিব্রতকর পরিস্থিতির কারণ হতে পারে। জেনে নিন এমন কিছু খাবার সম্পর্কে যেগুলো আপনার পেট ফাঁপার কারণ হতে পারে-

পেঁয়াজ

আমরা যে প্রতিদিনের রান্নায় পেঁয়াজ ব্যবহার করি, তার কারণেও পেট ফাঁপা হতে পারে। পেঁয়াজে রয়েছে ফ্রুক্টোজ, যা হজমের সময় ভেঙে গ্যাস তৈরি করে। আপনার যদি ঘন ঘন পেট ফাঁপার সমস্যা থাকে তবে সব সময় পরিমিত পরিমাণে পেঁয়াজ খাবেন।

পপকর্ন

পপকর্নের ঠোঙা হাতে নিয়ে মুভি দেখতে বসা অনেকেরই প্রিয় কাজগুলোর একটি। কিন্তু আপনি কি জানেন যে এটি আপনার পেট ফাঁপার কারণ হতে পারে? পপকর্ন একটি সম্পূর্ণ শস্য যা শরীর দ্বারা সম্পূর্ণভাবে ভেঙে ফেলা কঠিন। এটি হজমের জন্য অতিরিক্ত এনার্জি খরচ হয়। পপকর্নে প্রচুর লবণ দেওয়া থাকে যা শরীরে ফোলাভাব সৃষ্টি করে।

চুইংগাম

যদিও চুইংগাম খাই না, চিবিয়ে ফেলে দেই। কিন্তু এটি চিবানোর প্রক্রিয়া আমাদের পরিপাকতন্ত্রে প্রচুর বাতাস আটকে রাখে। এই বায়ু পরবর্তীতে পরিপাকতন্ত্র থেকে গ্যাস আকারে নির্গত হয়। চুইংগামের চিনির উপাদান এই প্রভাবকে আরও বাড়িয়ে তুলতে পারে। তাই পেট ফাঁপার সমস্যা থাকলে চুইংগাম খাওয়ার পরিমাণ কমিয়ে দিন।

দানা শস্য

পুষ্টিবিদ এবং ডায়েটিশিয়ানরা আমাদের ডায়েটে দানাশস্য যোগ করার পরামর্শ দেন। কিন্তু আস্ত গম, ওটস এবং বার্লির মতো শস্য পেট ফাঁপার ক্ষেত্রে দায়ী হতে পারে। দানা শস্য খাওয়ার পরে যদি অত্যধিক গ্যাসের সমস্যা দেখা দেয় তবে হতে পারে আপনার গ্লুটেন ইনটলারেন্স রয়েছে। সেক্ষেত্রে একজন বিশেষজ্ঞ পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নেওয়া ভালো।

কোমল পানীয়

কোমল পানীয় সবসময়ই সুস্বাদু, কিন্তু এগুলো গ্যাস্ট্রিকের সমস্যার জন্য দায়ী হতে পারে। যেমন আপনি যখন কোমল পানীয় খান তখন পরিপাকতন্ত্রের মধ্য দিয়ে যাওয়া বাতাসের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। তাই আপনার পেট ফাঁপার সমস্যা থাকলে কোমল পানীয় যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলুন।

ক্রুসিফেরাস সবজি

ক্রুসিফেরাস সবজি নামে পরিচিত কিছু সবজি অতিরিক্ত খেলে গ্যাস ও পেট ফাঁপা হতে পারে। পেট ফাঁপার সমস্যা থাকলে ফুলকপি, বাঁধাকপি, ব্রকলি এবং ব্রাসেলস স্প্রাউট এড়িয়ে চলুন, কারণ এতে প্রচুর পরিমাণে জটিল শর্করা থাকে যা গ্যাস নির্গত করে।

মনে রাখবেন, আপনাকে এই খাবারগুলো সম্পূর্ণভাবে বাদ দিতে হবে না। প্রথমে একটি খাবার বাদ দিয়ে আপনার হজমের উপর প্রভাব পরীক্ষা করুন। এবং খাদ্যে কোন বড় পরিবর্তন করার আগে সবসময় একজন পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করতে ভুলবেন না।



এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।