Ad: ০১৭১১৯৫২৫২২
২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ || ১৩ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন আদালত
  3. আইন শৃংখলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. কৃষি অর্থনীতি
  6. খেলাধূলা
  7. চাকরি-বাকরি
  8. জাতীয়
  9. জীবনের গল্প
  10. ধর্ম
  11. নির্বাচনী হাওয়া
  12. ফিচার
  13. বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
  14. বিনোদন
  15. রাজধানী
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বিদেশি শক্তি আমাদের ক্ষমতায় বসায়নি: ওবায়দুল কাদের 

নিউজ রুম
জানুয়ারি ২৮, ২০২৪ ১১:০৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

লাখোকন্ঠ অনলাইন ডেস্ক: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এই সরকার জনগণের নির্বাচিত সরকার। চীন, রাশিয়া ও ভারত আমাদের বন্ধু হতে পারে। কিন্তু কোনো বিদেশি শক্তি আমাদের ক্ষমতায় বসায়নি। নির্বাচনের খেলা শেষ, এখন খেলা হবে রাজনীতির। দুর্নীতি, সাম্প্রদায়িকতা, হরতাল-অবরোধ ও আগুন সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে খেলা হবে।

 

গতকাল শনিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের আয়োজনে শান্তি ও গণতন্ত্র সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। বিএনপি ও তার মিত্রদের কালো পতাকা মিছিলের দিনে আয়োজিত এই সমাবেশে বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নেন। নির্বাচন-পরবর্তী এই শান্তি সমাবেশের মধ্য দিয়ে রাজধানীতে আরেকটি শোডাউন করল ক্ষমতাসীন দলটি।

 

ওবায়দুল কাদের দলের পক্ষ থেকে আগামী ৩০ জানুয়ারি সারাদেশে শান্তি ও গণতন্ত্র সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করে বলেন, নেতাকর্মী ওই দিন লাল-সবুজের পতাকা হাতে মহানগর, জেলা ও উপজেলায় শান্তি ও উন্নয়ন সমাবেশ করবেন। তারা সতর্ক পাহারায় থাকবেন। বিএনপি নামের সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে আমরা আর বাড়তে দিতে পারি না। স্বাধীনতার পক্ষশক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এদের মোকাবিলা করতে হবে।

 

বিএনপির উদ্দেশে তিনি বলেন, বিদেশিদের ভয় দেখান? ৪১.৮ শতাংশ লোকের ভোটে এই সরকার গঠিত হয়েছে। সরকার জনগণের কল্যাণে কাজ করে যাবে। বিএনপির কালো পতাকা মিছিলের সমালোচনা করে তিনি বলেন, কালো পতাকা মানে কী, শোকের মিছিল? বিএনপির নেতাকর্মীরা হতাশ, তারা লন্ডন থেকে পাঠানো তারেক রহমানের ফরমায়েশি কথায় আর কান দেন না। তারেকের প্রতি আস্থা হারিয়েছেন। বিএনপি নেতা গয়েশ্বর বাবু (গয়েশ্বর চন্দ্র রায়) আজ পল্টনে হাজির হয়েছেন, কোথায় ছিলেন এতদিন? তিনি বলেছিলেন, আমরা নাকি অলিগলি খুঁজে পাব না, পালিয়ে যাব। কে পালিয়েছে? ডিবি অফিসে বোয়াল মাছ খেয়ে পালিয়েছিল কারা? এখন গয়েশ্বর বাবুরাই অলিগলি খুঁজে পাচ্ছেন না। দেখতে দেখতে ১৫ বছর, সামনে আছে আরও পাঁচ বছর। মানুষ বাঁচে আর কয় বছর? কবে হবে আন্দোলন? রোজার পর না ঈদের পর? বিএনপির এই আন্দোলন মানুষ মানে না। তাদের আন্দোলন, হরতাল-অবরোধ, কালো পতাকা, এক দফা, ২৮ দফা সবই ভুয়া। বিএনপি ভিসা নীতি আনতে চায়, নিষেধাজ্ঞা আনতে চায়। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের জনগণ ছাড়া কাউকে পরোয়া করেন না। সেতুমন্ত্রী বলেন, শিগগির দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে আসবে, ধৈর্যহারা হবেন না, প্রধানমন্ত্রী পুরো মন্ত্রিসভা নিয়ে কর্মপরিকল্পনা ঠিক করেছেন। সামনে রমজান। ইনশাআল্লাহ আমরা দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করতে পারব।

সমাবেশে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বিএনপি কালো পতাকা কাকে দেখাবে? বিএনপির নেতাকর্মীর উচিত ছিল, ব্যর্থ আন্দোলন ও ব্যর্থ কর্মসূচি দেওয়ায় তাদের নেতাদেরই কালো পতাকা দেখিয়ে তৃণমূল নেতাদের নেতৃত্বে নিয়ে আসা। অতীতের সব ভুল স্বীকার করে ও জাতির সামনে ক্ষমা চেয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার রাজনীতি ও আইনের শাসনের বাংলাদেশে ফেরার জন্য বিএনপির প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

 

দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, বিএনপিকে আরও পাঁচ বছর অপেক্ষা করতে হবে আরেকটি নির্বাচনের জন্য। ততদিন বিএনপি নেতাকর্মীর মনোবল থাকবে কিনা জানি না। দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি কালো পতাকা কাকে দেখাতে চায়? আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে জনগণই তাদের কালো পতাকা দেখিয়ে দিয়েছে।

 

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল-আলম হানিফ বলেন, জনগণ নির্বাচনে অংশ নিয়েছে বলেই বিএনপির ষড়যন্ত্র বানচাল হয়ে গেছে। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফীর সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য অ্যাডভোকেট সানজিদা খানম, মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি, কৃষক লীগের সভাপতি সমির চন্দ, যুব মহিলা লীগের সভাপতি আলেয়া সারোয়ার ডেইজি, সাধারণ সম্পাদক শারমিন সুলতানা লিলি, মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি সাঈদুর রহমান, সাবেক এমপি সাইফুজ্জামান শিখর, ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইসহাক আলী খান পান্না, মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী রোটন, সাবেক সভাপতি এইচএম বদিউজ্জামান সোহাগ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির, সহসভাপতি নুরুল আমীন রুহুল প্রমুখ।

 

যৌথভাবে সমাবেশ পরিচালনা করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাইফুন্নবী চৌধুরী সাগর, দপ্তর সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ ও মহানগর নেতা আসাদুজ্জামান।

 



এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।