Ad: ০১৭১১৯৫২৫২২
২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ || ১৩ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন আদালত
  3. আইন শৃংখলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. কৃষি অর্থনীতি
  6. খেলাধূলা
  7. চাকরি-বাকরি
  8. জাতীয়
  9. জীবনের গল্প
  10. ধর্ম
  11. নির্বাচনী হাওয়া
  12. ফিচার
  13. বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
  14. বিনোদন
  15. রাজধানী
আজকের সর্বশেষ সবখবর

রাজনীতি নিয়ে ভাবছি না, তবে মানুষের জন্য কিছু করতে চাই: রত্না

নিউজ রুম
ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২৪ ৬:০৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বিনোদন প্রতিবেদক: চিত্রনায়িকা রত্না ২০০২ সালে ‘কেন ভালোবাসলাম’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে নাম লেখান। সেলিম আজম পরিচালিত এ সিনেমায় ফেরদৌসের বিপরীতে অভিনয় করেন তিনি। এরপর কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘ইতিহাস’ সিনেমায় অভিনয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্রাঙ্গনে জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। ক্যারিয়ারের এক যুগে রত্না অর্ধশত চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী।

বর্তমান ব্যস্ততা সহ, সম্প্রতি সব বিষয় জানাতে সাক্ষাৎকার নিয়েছেন নিজস্ব প্রতিবেদক এম এস শবনম শাহীন…

প্রতিবেদক: কেমন আছেন? এই মূহুর্তে বর্তমান ব্যস্ততা নিয়ে আমাদের কিছু বলুন…
রত্না: জ্বী, আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি ভাইয়া। আশা করছি আপনিও ভালো আছেন! আমি বর্তমানে “কিশোর গ্যাংস্টার” নামক একটি সিনেমায় কাজ করছি, সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন মোসাদ্দেক রহমান ফাগুন। আরও বেশকিছু সাইনিং করা পুরনো সিনেমার শ্যুটিং বাকী ছিল সেগুলোও শেষ করেছি। পাশাপাশি নিয়মিত ওটিটি প্লাটফর্মে কাজ করছি।

প্রতিবেদক: আপনি তো বর্তমান সুপারস্টার শাকিব খান সহ অনেক অভিনেতাদের সঙ্গে কাজ করেছেন! কোন অভিনেতার সাথে কাজ করে সবচেয়ে বেশী স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেছেন?
রত্না: আপনারা জানেন আমার প্রথম সিনেমার নায়ক ছিলেন ফেরদৌস ভাই, তারপর অনেকের সাথেই তো কাজ করেছি। সবার সাথেই কাজ করে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেছি। তবে যারা প্রথম হিরো ছিলেন আমার তাদের সাথে কাজ করার ফিলিংসটা আমার জন্য অন্যরকম অনুভূতি।

প্রতিবেদক: একজন অভিনেত্রী হিসেবে নিজেকে ১০০ এর মধ্যে কত নাম্বার দিবেন?
রত্না: একচ্যুয়ালি শেখার কোন শেষ নেই! আর অভিনয় জিনিসটা অনেক অনেক কঠিন একটা জিনিস। যতই অভিনয় করছি মনে হয় আরও নতুন করে শিখছি। শেখার এখনও অনেক কিন্তু বাকি আছে অভিনয় জীবনে। অভিনয়ে আমি ১০০ এর মধ্যে নিজেকে ১০ নাম্বার দিব।

প্রতিবেদক: সিনেমার সোনালী যুগ ছিল ৯০ দশকে! তখন এত টেকনোলজি ছিল না। ছিল না অত্যাধুনিক প্লাটফর্ম! তবুও তখনকার সময়ের সিনেমাগুলো জনপ্রিয়তার শীর্ষে ছিল। এখন এত আধুনিক টেকনোলজি থাকতেও কেন সিনেমা ভালো না চলার কারণ কি?
রত্না: এটার একমাত্র কারণ হচ্ছে আমি মনে করি অতিরিক্ত আধুনিকতার ছোয়া। চারদিকে অনেক অনেক টেকনোলজি। এখন মানুষ আর হলে গিয়ে সিনেমা দেখতে চায় না। ফোন, ইন্টারনেটের উপর সবাই নির্ভরশীল! যতই ভালো সিনেমা বানানো হোক তবুও এখন আর সেই সোনালী যুগের মতো সিনেমা চলবে না। এটার জন্য একমাত্র টেকনোলজি দায়ী আমি মনে করি।

প্রতিবেদক: আমরা জানি আপনার নিজস্ব প্রডাকশন হাউজ রয়েছে। নিজ প্রযোজনায় একটা সিনেমায় নির্মাণ করেছেন আপনি। ভবিষ্যতে কি কখনও সিনেমা পরিচালনা করবেন?
রত্না: না, একদম না। সিনেমা পরিচালনা কখনও করবো না। তবে আমি আশাবাদী যদি সিনেমায় বিজনেস ভালো হয় তাহলে নিজের প্রডাকশন থেকে সিনেমা প্রযোজনা করবো।

প্রতিবেদক: বর্তমানে অনেক অভিনেত্রীরা রাজনীতির খাতায় নাম লেখাচ্ছেন! সুদূর ভবিষ্যতে কি আপনি কখনও রাজনীতিতে আসবেন?
রত্না: দেখুন আমার বাবা ছিলেন একজন রাজনীতিবিদ এবং মুক্তিযোদ্ধা, সেই জায়গা থেকে রাজনীতি আমার রক্তে মিশে আছে। আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিজের মধ্যে লালন করি! তবে রাজনীতিতে আসার কোন প্রকার ইচ্ছে নেই। সুদূর ভবিষ্যতে আসব কিনা সেটাও ঠিক বলতে পারছিনা, তবে আমি মানুষের জন্য কাজ করে যেতে চাই। আমি মনে করি মানুষের জন্য কিছু করতে গেলে রাজনৈতিক পরিচয় দরকার পড়ে না। রাজনৈতিক পরিচয়ের বাইরেও মানুষের জন্য চাইলে অনেককিছু করা যায়।



এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।